প্রচ্ছদ » মুক্তমঞ্চ » আমার কথা » আধুনিকতার বিভৎস মূর্তি

আধুনিকতার বিভৎস মূর্তি

সভ্যতায় ঘেরা আধুনিকতার প্রাচীরে আবদ্ধ মানুষ সদা নিজ চিন্তায় মগ্ন| এখানে কেউ অনাহারে অনিদ্রায় দিন কাটায়, কেউ এসির গাড়িতে চড়ে হাওয়া খায়| কেউ লাঞ্চনা বঞ্চনায় পিষ্ট আর কেউ আমোদে ফূর্তিতে বিন্দাস| এগুলি সভ্য জগতের চিরাচরিত নিয়ম| আপনারা হয়তো ভাবছেন আমি সভ্য জগতকে অপবাদ দিচ্ছি| না, তা মোটেই নয়| আমি সাম্প্রতিক ঘটে যাওয়া ঘটনাগুলির আলোকে এসব কথা বলছি| গত বেশ কয়েক দিন ধরেই খবরের পাতা খুললেই চোখে পড়তো নারী বা যুবতী মেয়ে ধর্ষণ, এখন আবার ঢল পড়েছে নির্মমভাবে শিশু হত্যার| আসুন নিজের বিবেকবোধ জাগ্রত করি | স্বীয় চিন্তাকে পরিশুদ্ধ করি| মুখে নয়, কাজে কর্মে নিজেদের সভ্য বলে পরিচয় দেয়| সেসময় পাকিস্তানিদেরকে দমন করার জন্য বাঙালি জাতি যুদ্ধে ঝাপিঁয়ে পড়েছিল| আর আজ একদল ধর্ষণকারী এবং শিশু হত্যাকারী নর পিশাচের শাস্তির জন্য আমাদেরকেই জোর গলায় বলিষ্ঠ কণ্ঠে প্রতিবাদের স্বর তুলতে হবে| কারণ একুশ শতাব্দির একটু পিছনে তাকালে মনে পড়ে পহেলা বৈশাখে টিএসসিতে লাঞ্চিত সেই মেয়েটির কথা, যার দিকে কেউ সাহায্যের হাত বাড়ায় নিই| অষ্টম শ্রেণির পূর্ণিমা, যাকে নির্মমভাবে তার মায়ের সামনে ধর্ষণ করা হয়েছিল| রাকিব রাজনের নির্মম পরিণতি, যাদেরকে তিলে তিলে মৃত্যু যন্ত্রণা সহ্য করতে হয়েছিল|কী দোষ ছিল সেই মেয়েদের যাদের ধর্ষণ করা হলো? কী দোষ ছিল রাকিব রাজনের যাদেরকে নির্মমভাবে হত্যা করা হলো? স্বাধীনতার এই ৪৪ বছরে স্বাধীন বাংলার এই চিত্র কি আমাদের কাম্য ছিল? এই চিত্র আমাদেরকে কি আরেকবার পাকিস্তানি আমলের বর্বরতার কথা স্মরণ করিয়ে দেয় না? কী দোষ ছিল সেই শিশুগুলোর যাদেরকে নির্মমভাবে হত্যা করা হল? কীসের দায়ে সেই মেয়েগুলিকে ধর্ষণ করা হল? একুশ শতাব্দির এই সময়ে আধুনিকতার এই বিভৎস রূপ আমাদের নিকৃষ্ট চেতনা আর কুপ্রবৃত্তিরই বহিঃপ্রকাশ| এটা আমাদের লজ্জা, যা ঢাকার কোনো আবরণ নেই| আর যদি কিছু থেকেও থাকে তবে তাহলো বিবেকবোধ|

>
বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।