প্রচ্ছদ » আমাদের সাহিত্য » বিষন্নতায় প্রতিদিন

বিষন্নতায় প্রতিদিন

যে পাখি আকাশে উড়ে,

তারও একটি ঠিকানা হয়।
যে বালুকণা বাতাসে ভাসে,
সে কোথাও থামে।
দুরন্ত শিশুর কোলাহল এক সময় থেমে যায়,
নক্ষত্র রাজির শেষ ঠিকানা ঐ
ব্ল্যাকহোল,
সান্ত্বনার সীমানার যোজন দূরে কেবল
আমার হৃদয়।
আমি কি প্রবহমান সমুদ্রের জলরাশি?
নাকি অবিরাম বয়ে চলা সময়ের
মহাশ্রোত?
যার মায়াবী বাঁধনে ভেসে চলাই আমার কাজ?
প্রতিদিনের ঘাত-প্রতিঘাতে ক্ষত বিক্ষত আমার হৃদয়,
মরুময় মরীচিকার পেছনে ছুটতে ছুটতে।
বিষণ্ণ জীবন, যেখানে শুধুই হাহাকার।
আর কত কাল, কত সময়, এবার-
আমি এমন মন চাই, যার বিশালতা আকাশের ন্যায়,
আমি এমন স্বীকৃতি চাই, যার কাছে
ডায়মন্ড তুচ্ছ,
হিমালয় চুড়ার ন্যায় স্বচ্ছ উচ্চাশা চাই।
আমি আবেগ নয়, পবিত্র ভালবাসা চাই।
স্নিগ্ধ শ্যামল পল্লী মায়ের পরশে হারিয়ে যেতে চাই।

>
বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।