প্রচ্ছদ » উড়াল » সংগঠন » টিম বাংলা ইনিশিয়েটরের অন্যরকম বৈশাখ উৎযাপন

টিম বাংলা ইনিশিয়েটরের অন্যরকম বৈশাখ উৎযাপন

পুরোনো জরাজীর্ণতাকে পিছু হটিয়ে নতুনকে বরণ করে নেবার প্রত্যাশায় প্রতি বছর বাংলাদেশে মহা ধুমধামে নববর্ষ উৎযাপিত হয়। একটি নতুন ভোরের মধ্য দিয়েই শুরু হয় একটি নতুন বছরের। পুরোনো বছরের সকল গ্লানি, অপ্রাপ্তি আর বেদনা মুছে দিতে বাঙালী মেতে উঠে বর্ষবরণ এর উৎসবে। রঙবেরঙ এর শাড়ি আর পাঞ্জাবী গায়ে জড়িয়ে সবাই উৎসবে মেতে উঠলেও পথশিশুরা বৈশাখ এর মানেই বুঝে না। তাদের কাছে দিনটির আলাদা কোন বিশেষত্ব নেই। চন্দ্রিমা উদ্যানে ফুল বিক্রি করা ৮ বছর বয়সী বৃষ্টির কাছে বৈশাখ কি জানতে চাইলে সে বলে ‘ ওই দিন এক একটা ফুল ৫০ টাকায় বিক্রি অইব’।

তাই তো, সুবিধাবঞ্চিত এসব পথশিশুর এবারের বৈশাখটাকে রঙিন করতে এগিয়ে এসেছে দেশের প্রথম শিশু-কিশোর অনলাইন পত্রিকা বাংলা ইনিশিয়েটর।

বাংলা ইনিশিয়েটরের শিশু সাংবাদিকগন

বাংলা ইনিশিয়েটরের শিশু সাংবাদিকগন

ঢাকার জাতীয় সংসদ ভবন সংলগ্ন চন্দ্রিমা উদ্যানে প্রায় দেড় শতাধিক পথশিশু নিয়ে বৈশাখ পালন করে তারা। ইভেন্টের নাম ছিল ‘বাংলা ইনিশিয়েটর পথশিশুদের সাথে বৈশাখ উৎযাপন ১৪২৩’

এক শিশুকে খাইয়ে দিচ্ছেন সোনালি ব্যাংক কর্মকর্তা পরশ মুন্সি

এক শিশুকে খাইয়ে দিচ্ছেন সোনালি ব্যাংক কর্মকর্তা পরশ মুন্সি

সকাল ৯ টা বাজে শুরু হয় ইভেন্টের কার্যক্রম।  শুরুতেই পথশিশুদের প্রয়াত অভিনেতা মান্না চরিত্রের হুবুহু অভিনয় করে আনন্দ দেন সোনালি ব্যাংক, চাঁদপুর শাখার কর্মকর্তা পরশ মুন্সি।

উৎসবের একাংশ

উৎসবের একাংশ

এরপর  পথশিশুদের মাঝে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ও খেলাধুলার আয়োজন করা হয়। ওরা নিজেরা গান, ছড়া, কবিতা শোনায় সবাইকে। খেলাধুলার মধ্যে চকলেট দৌড়, বল নিক্ষেপ ছিল প্রধান।

চকলেট দৌড় খেলায় অংশ নেয়া প্রতিযোগী

চকলেট দৌড় খেলায় অংশ নেয়া প্রতিযোগী

প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিশুদের বিভিন্ন উপহার দেয়া হয়। যারা বিজয়ী হতে পারেনি তাদেরকেও দেয়া হয় সান্তনা উপহার।

D70_0017

D70_0021

পথশিশুদের সাথে আড্ডা, গল্প বলায় পুরোটা সময় ভলান্টিয়াররা ব্যাস্ত ছিল। এরপর প্রায় ১৫০ জনকে দুপুরের খাবার বিতরনের মাধ্যমে উৎসবের সমাপ্তি হয়।

চলছে খাবার বিতরন

চলছে খাবার বিতরন

বাংলা ইনিশিয়েটরের প্রায় ২৫ জন শিশু সাংবাদিক পুরো আয়োজনটিকে সফল করতে পরিশ্রম করে। প্রজেক্ট পরিচালক হিসেবে দ্বায়িত্ব পালন করে শহীদ পুলিশ স্মৃতি কলেজের শিক্ষার্থী শারমিন জাহান তিথী এবং ব্যবস্থাপক হিসেবে ছিল বিসিআইসি কলেজের কাজী মুয়াজ্জমা তাসনিম এবং শহীদ পুলিশ স্মৃতি কলেজের তানভীর আলম। এছাড়াও প্রজেক্ট লিডিং টিম হিসেবে ইমতিয়াজ কবির প্রত্যয়, নাঈম বিল্লাহ হাওলাদার, ওয়াশিউর রহমান, শৈবাল দাস গুপ্ত, মাহমুদুর রহমান মুগ্ধ, হাসান মুন্তাসির সিয়াম সম্পূর্ন প্রজেক্টটির আয়োজন করে।

D70_0486

বাংলা ইনিশিয়েটরের সম্পাদক জনাব সবুজ শাহরিয়ার খান বলেন ‘ সমাজের প্রতি দায় বদ্ধতা থেকেই আমাদের এই ব্যতিক্রমী আয়োজন। ভবিষ্যতেও আমাদের শিশু সাংবাদিকদের সাথে নিয়ে এমন আরো অনেক কিছু করার পরিকল্পনা রয়েছে আমাদের।’

D70_0346
ইভেন্ট এর ভেন্যু পার্টনার ছিল ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ। তেজগাঁও বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার জনাব বিপ্লব কুমার এবং শেরে বাংলা থানার ওসি জনাব জে জে বিশ্বাস এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানান এবং ইভেন্টে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করার ব্যবস্থা করেন। ভবিষ্যতেও এমন উদ্যোগে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ সর্বাত্মক সাহায্য করার আশ্বাস দেন।

>
বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।