প্রচ্ছদ » উড়াল » তারুণ্য » বন্ধুত্বের আরেক নাম ফারাজ

বন্ধুত্বের আরেক নাম ফারাজ

খাতুনে  জান্নাত , বাংলা ইনিশিয়েটর

বন্ধু-এই একটি নামই যথেষ্ঠ আমাদের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য ।বন্ধু ছাড়া যেন এক মূহুর্ত চলে না আমাদের । যত দুঃখ-কষ্ট থাকে আমাদের মনে সব যেন বন্ধুকে দিয়ে ফেলে হালকা হতে চাই আমরা। আবার সমস্ত আনন্দও ভাগ করে নিতে চাই বন্ধুর সঙ্গে।

এই মানুষগুলো,যাদের আমরা বন্ধু ভাবি,তারা অনেক সময় সত্যিকারের বন্ধু হয় না। অনেকে সুসময়ের কোকিল হয়ে সুসময়ে পাশে থেকে নিজের বন্ধুত্বের কর্তব্য পালন করে। বিপদের দিন এলে দেখা যায় ঈশপের গল্পের প্রথম বন্ধুর মতো তারা আমাদেরকে ভালুকের মুখে ছেড়ে দিয়ে যায়। একবার বিপদে পড়লেই বোঝা যায় প্রকৃত বন্ধু কে?  যে বিপদের দিনে বন্ধুরে ছেড়ে চলে যায় না, বরং শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে বন্ধুকে বিপদ থেকে উদ্ধারের চেষ্টা করে,সেই তো প্রকৃত বন্ধু!

ফারাজ আইয়াজ হোসেন-এমনই এক বন্ধুর নাম, যে নিজের জীবন দিয়ে লিখে রেখে গেছে বন্ধুত্বের সংজ্ঞা। প্রমাণ করে গেছে তার বন্ধুত্ব ঈশপের গল্পের প্রথম বন্ধুর মতো নয়। একেবারে খাঁটি বন্ধুপ্রীতি ছিল তার মধ্যে ।

ছোটবেলায় ফারাজ ঢাকার আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে পড়ত। সেখানেই পরিচয় হয় অবিন্তা কবীর আর তারিশি জৈনের সঙ্গে। সেই ছোটবেলা থেকেই তিনজনের মধ্যে অসম্ভব সুন্দর বন্ধুত্ব ছিল। ফারাজ এবং অবিন্তা ইমোরি বিশ্ববিদ্যালয়ে আর তারিশি ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ছিল।

গত ১ জুলাই তিন বন্ধু গুলশানে হলি আর্টিজান বেকারিতে দেখা করতে আসে। আর তখনই তারা শিকার হয় ভয়াবহ এক জঙ্গি হামলার। নিউইয়র্ক টাইমস-এর প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, জঙ্গিরা শুধু বিদেশীদের হত্যা এবং বাংলাদেশীদের কিছু করবে না বলে জানিয়েছিল। সেই কথা অনুযায়ী অন্য বাংলাদেশীদেরকে ছেড়েও দিয়েছিল জঙ্গিরা। ফারাজকেও ছেড়ে দিতে চেয়েছিল তারা। বন্ধুদের মৃত্যুর ঝুঁকিতে রেখে নিজের জীবন বাঁচাতে রাজি হয়নি ফারাজ  । একা একা চলে আসার লোভ সংবরণ করে সে। সন্ত্রাসীদের দেওয়া দুই বন্ধুকে রেখে চলে আসার প্রস্তাব সে প্রত্যাখ্যান করে। সম্ভবত এ জন্যই  ওকে প্রাণ দিতে হয়েছে।। পরদিন সকলের সঙ্গে পাওয়া যায় ফারাজের মৃতদেহ।

বন্ধুত্ব বুঝি এমনই হয়। ফারাজ নিজের জীবন দিয়ে বুঝিয়ে দিয়ে গেল সে কোন আলাদা সত্তা নয়, বরং তারা তিন বন্ধু মিলেই ছিল একটি সত্তা। এ কারণেই তো বন্ধুদের ফেলে রেখে চলে যেতে পারেনি সে!  ফারাজের এই আত্নত্যাগ গর্বিত করে আমাদের, করে অনুপ্রাণিত। এই ঘটনার পর আমরা বলতেই পারি-বন্ধুত্বের আরেক নাম ‘ফারাজ’!

>
বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।