প্রচ্ছদ » উড়াল » তারুণ্য » নীল সাদা জগতের বন্ধুত্ব

নীল সাদা জগতের বন্ধুত্ব

 মিনার মাহবুব, বাংলা ইনিশিয়েটর

facebook

বন্ধুত্ব- অদ্ভুত এই সম্পর্ক সংজ্ঞায়িত করা যায় না, জীবনের প্রতিটি বাঁকে অনুভবেই পাওয়া যায় অপার্থিব এই বন্ধুত্বের ছোঁয়া। শুধু সুখ সময়ের সুজন নয়- কষ্ট, দূঃখ, যন্ত্রনা, অপরাধ, দুষ্টুমি এবং সকল গোপনীয় অনুভূতির নিরাপদ আশ্রয় বন্ধুত্ব। একজন বন্ধুর সামনে দাড়ালে প্রায়োজন পড়েনা আয়নার- সমালোচনা, রাগ, অনুনয়, বকাঝকা কিংবা অধিকার খাটিয়েই প্রকাশ করে জীবনপ পথের সঠিক প্রতিচ্ছবি। কিন্তু ইন্টারনেটের এই সহজলভ্যতার যুগে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটের দৌরাত্মে এমন বন্ধুত্ব কি সম্ভব?

ফেসবুকে একটি ফ্রি অ্যাকাউন্টের বিনিময়ে পাওয়া যায় ৫ হাজার বন্ধু। আসলেই কি তাদের বন্ধু বলা যায়? ছবি কিংবা স্ট্যাটাসে লাইক অথবা কমেন্টে ভাসিয়ে দিলেই তার নাম বন্ধুত্ব? সময় অসময়ে পিং পং চ্যাটিং কিংবা ইমো দিয়েই হয়ে যায় বন্ধুর সঙ্গে ভাব বিনিময়? অপরিচিত কিংবা স্বল্পপরিচিত তথাকথিত বন্ধুর কাছেই মেলে ধরা যায় নিজের একান্ত জগত? চলুন কিছু তরুনদের কাছ থেকে জেনে নেই ফেসবুক বন্ধুত্ব সম্পর্কে তাদের মতামত

 

obayedullaমোহাম্মদ ওবায়দুল্লাহ
ইন্টার প্রথম বর্ষ, ঢাকা সিটি কলেজ

 

অন্য সবার থেকে আলাদা ও অনন্য হয় বন্ধুত্ব নামক এই পবিত্র সম্পর্কের বাহকেরা। বন্ধুত্ব খুব গুরুত্বপূর্ণ একটা সম্পর্ক। তাই বন্ধুত্বের সম্পর্কের জন্য বন্ধু বাছাই করাও একটা অপরিহার্য বিষয়। এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের কল্যাণে আমরা বিভিন্ন ধরণের বন্ধু পেয়ে যাচ্ছি সহজেই। খুব একটা বাছ-বিচার না করেই ‘প্রকৃত বন্ধু’ আখ্যাটা দিয়ে ফেলছি! তবে এটা জেনে রাখা উচিত, এই ভার্চুয়াল বন্ধুরা কখনোই তোমার বিপদের সময় মোবাইল কিংবা কম্পিউটারের স্ক্রিন থেকে বের হয়ে এসে তোমাকে সাহায্য করতে আসবে না। বর্তমান প্রেক্ষাপটে ফেসবুক আসলে বন্ধুত্বের মূল্যটা কমিয়ে দিচ্ছে। আন্তরিকতা কমিয়ে দিচ্ছে।
মারজুবামারজুবা আফরা
দশম শ্রেণি,মিরপুর ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ

 

ফেসবুকে প্রতিদিনই নতুন নতুন মানুষের সাথে আমাদের পরিচয় হচ্ছে। এদের কারো সাথে হয়তো খুব ঘনিষ্ঠ হয়ে যাচ্ছি। অনেক সময় আবেগপ্রবণ হয়ে তাদের সাথে নানান ব্যক্তিগত বিষয় শেয়ার করে ফেলি। এটা মোটেও উচিত নয়। কারণ, তার সাথে আমার এখনো সামনাসামনি দেখা হয়নি। তবে আমি কি করে নিশ্চিত হব সে ভালো না খারাপ চরিত্রের? এ শেয়ারকৃত কথাগুলো সে যে খারাপ উদ্দেশ্যে ব্যবহার করবে না-তারও কি কোন নিশ্চয়তা আছে?
fransisফ্রান্সিস চাকমা
ইন্টার প্রথম বর্ষ,নটরডেম কলেজ
 
ফেসবুক অবশ্যই বন্ধুত্বের নতুন দুয়ার খুলে দিয়েছে। খুব সহজেই আমরা এখন অনেক মানুষের সাথে বন্ধুত্ব করে ফেলতে পারছি। এটা অবশ্যই ভালো দিক!  নতুন নতুন মানুষের সাথে বন্ধুত্ব গড়ে তোলার সাথে সাথে একঘেয়েমিতা অনেকটা কেটে যায়।

পরাগ জাকারিয়া পরাগ

গণিত বিভাগ,ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

 

এই ফেসবুকের জগতটা ভার্চুয়াল হলেও,কারো সাথে অবশ্যই ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে তোলা যায়। মনে কর,একই ভাবধারার দুজন মানুষ দেশের দুপ্রান্তে থাকে।হয়তো তাদের মধ্যে কোনদিনই দেখা হতো না।কিন্তু,ফেসবুকের মাধ্যমে তারা একে অপরের সাথে সহজেই বন্ধুত্ব করে তাদের কথাগুলো একে অপরের সাথে শেয়ার করতে পারছে।

ishtiakইশতিয়াক হাসান আলিম

দ্বিতীয় বর্ষ,তা’মিরুল মিল্লাত কামিল মাদ্রাসা

 

ফেসবুকে গড়ে ওঠা বন্ধুত্বটা মোটেও খারাপ না।কিন্তু,এটা কখনোই বাস্তব জীবনের বন্ধুত্বের সমান হতে পারবে না।তুমি তোমার ভার্চুয়াল বন্ধুকে নিয়ে কখনোই বৃষ্টিতে ভেজার আনন্দ উপভোগ করতে পারবে না।টঙ দোকানে বসে চা খেতে খেতে গল্প করতে পারবে না।আর এ ধরণের বন্ধুত্বের নিশ্চয়তাও নেই-যেকোন সময় ভেঙে যেতে পারে

আনিকাআনিকা মেহজাবিন

দশম শ্রেণি,মণিপুর উচ্চ বিদ্যালয়

 

ফেসবুকে নতুন নতুন মানুষের সাথে বন্ধুত্ব গড়ে তোলা অবশ্যই এক অন্যরকম অভিজ্ঞতা।বিভিন্ন চিন্তাধারার মানুষের সাথে পরিচিত হওয়া যায়।তবে,এটা মানুষকে বিপদে ফেলার এক অভিনব মাধ্যমও বটে!তাই,বাস্তব জীবনে বন্ধু বানাতে গেলে আমরা যেমন সচেতন থাকি,তেমনি ফেসবুকেও থাকা উচিত

13940977_592290544265553_450827459_nসূচনা পাল

দশম শ্রেণি,ভিকারুন্নিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজ

 

ফেসবুকে গড়ে ওঠা বন্ধুত্বের ভালো এবং খারাপ-উভয় দিকই আছে।তুমি যদি শুধুমাত্র ভার্চুয়ালি কথাবার্তার বলেই তাকে বিশ্বাস করে ফেলো,তবে তা অবশ্যই ভালো কিছু না!এতে তোমার ক্ষতি হবার সম্ভাবনা থাকবে।আবার অনেক সময় ফেসবুকে গড়ে ওঠা বন্ধুত্ব অনেক ক্লোজ এক বন্ধুত্বে পরিণত হয়।এক্ষেত্রে,বুঝেশুনে বন্ধু নির্বাচন করা উচিত।

13923271_1021585771290246_4648145776957323805_o_Fotorখালেদ সাইফুল্লাহ
ইন্টার সেকেন্ড ইয়ার,ইস্তাম্বুল এফ.এস.এম কলেজ

 

ফেসবুক বন্ধু হোক আর যাই হোক বন্ধুতো বন্ধুই। তবে অনেকে মনে করে ফেসবুক বন্ধুকে শুধু চ্যাট বা স্টেটাস এ সীমাবদ্ধ থাকতে হয় । বলব ফেসবুক বন্ধুরা অবশ্যই কিছু অবদান রাখে। এমন কিছু কথা আছে যা হয়তো কাউকে শেয়ার করতে পারছি না কিন্তু সেটা  স্ট্যাটাস এর মধ্য দিয়ে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে পারি। সুখ দুঃখের কথা শেয়ার করতেও একটা  স্ট্যাটাসই যথেষ্ট কেননা তাতে করে অন্ততপক্ষে একজন হলেও ফেসবুক বন্ধু  সান্তনা বচনে জিজ্ঞেস করবে “কি হয়েছে?” তাই ফেসবুক বন্ধু শুধু যে চ্যাট এই থাকে তা না কিছুটা হলেও স্বাভাবিকত্বকে কেন্দ্র করে বাহিরের জগতকে দেখার সাহায্য করে ।

শারিতাশানজিন শারিতা

অষ্টম শ্রেনী, মিরপুর ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজে 

 

অনেক অপরিচিত মানুষের সাথে পরিচয় হয়। এর অবশ্যই ভালো দিক আছে। তুমি আগের চেয়ে অনেক বেশি বন্ধু পাচ্ছ। কিন্তু, যতই বন্ধুর সংখ্যা বাড়ুক না কেন, বাস্তব জীবনের সাথে বিশাল একটা ফারাক কিন্তু রয়েই যায়।

 

বাংলা ইনিশিয়েটর/০৮/০৮/২০১৬/এস এস কে/ সাব্বির/মিনার

>
বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।