প্রচ্ছদ » বাংলাদেশ » জমজমাট গরুর হাটে অভিযোগের পাহাড়

জমজমাট গরুর হাটে অভিযোগের পাহাড়

গাজী নাহিদ আহসান, বাংলা ইনিশিয়েটর

14249118_1572334233075255_343094185_n_fotor

জমজমাট হয়ে উঠতে শুরু করেছে রাজধানীর পশুরহাটগুলো। সব ধরনের পশুর আমদানি ভালো। এখনো প্রতিটি হাটেই ট্রাক ভর্তি গরু-মহিষ ও ছাগল-ভেড়া আসছে। হাটে ক্রেতা-বিক্রেতাদের দরকষাকষির পাশাপাশি বিক্রিও শুরু হয়েছে। তবে ঈদের আর মাত্র ১ দিন সময় বাকি থাকলেও ক্রেতা বিক্রেতার অভিযোগের শেষ নেই।  বিক্রেতারা বলছেন হাটে ক্রেতারা শুধু দাম দেখেই চলে যাচ্ছেন। বিক্রি খুবই কম।

এ দিকে হাটে গরু-ছাগলের সরবরাহ ভালো হলেও বেপারিরা দাম বেশি হাঁকায় হতাশ ক্রেতারা। আজ রোববার থেকে বেচাকেনা পুরোদমে শুরু হবে বলে মনে করছেন ক্রেতা-বিক্রেতা সবাই। রাজধানীর মিরপুরের ১৩-১৪ সংলগ্ন ভাষানটেকে যে কোরবানীর হাট বসেছে তা ঘুরে দেখা গেলো হাটে পশুর সরবরাহ ভালো। ক্রেতাদের সমাগম ভালো হলেও কেনা-বেচা পুরোদমে শুরু হয় নাই এখনো। এখানে নানা জাতের গরু তোলা হয়েছে।এ র মাঝে দেশীয় জাতের গরুর পাশাপাশি রয়েছে নেপালি, পাকিস্তানি, অস্ট্রেলিয়ান কিছু প্রজাতির এবং ভারতীয় কিছু প্রজাতির গরু। ক্রেতারা বলছেন গতবারের তুলনায় এবারের দাম বেশি। দুই-একজন গরু বিক্রেতার সাথে কথা বলে জানা গেছে এবার ক্রেতাদের মাঝারি সাইজের গরুর প্রতি আকর্ষন বেশি। ছাগল বেপারিরাও একই কথা বলছেন। বেপারিদের অভিযোগ গরুর খাবারের দাম বেশি এবং পথে পথে চাদাঁবাজির কারনেই দাম বাড়াতে বাধ্য হচ্ছেন তারা।

ফরিদপুরের আফজাল বেপারি বলেন তিনি এবার ২৫ টি গরু নিয়ে এসেছেন এর মাঝে ৩ টি বিক্রি হয়েছে। ক্রেতারা দাম খুব কম বলায় হতাশ তিনি। আবার মিরপুর ১০ নম্বর থেকে আসা ক্রেতা মেহেদীর সাথে কথা বলে জানা গেলো গরু বেপারিরা অতিরিক্তই দাম হাকাচ্ছেন। তিনি আশা করেন শেষ মুহূর্তে এসে গরুর দাম কমবে। তিনি বলছেন পশুর দাম এখনো নাগালের বাহিরে। তবে পথে পথে আটকে থাকা গরুগুলো হাটে এলেই দাম অনেকটা কমে যাবে। এবারের হাটগুলোতে পর্যাপ্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন রয়েছে। এসব নিয়ে খুশি ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়েই।

>
বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।