প্রচ্ছদ » মুক্তমঞ্চ » আমার কথা » শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোই কি আমাদের পরোক্ষাভাবে দূর্নীতি শেখাচ্ছে?

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোই কি আমাদের পরোক্ষাভাবে দূর্নীতি শেখাচ্ছে?

  নুহিয়াতুল ইসলাম লাবিব, বাংলা ইনিশিয়েটর, ঢাকা

শিক্ষকদের বলা হয়ে থাকে মানুষ গড়ার কারিগর। কিন্তু সেই মানুষ গড়ার কারিগররাই যখন দুর্নীতি নিয়ে ব্যস্ত তখন ছাত্র ছাত্রীদের কে মানুষ হিসেবে গড়ে তুলবে তাই চিন্তার বিষয় হয়ে দাড়িয়েছে।

মৌলিক অধিকারগুলোর মধ্যে অন্যতম একটি অধিকার হলো শিক্ষা । কিন্তু এই মৌলিক চাহিদা পূরণ করা যেন ধীরে ধীরে আকাশের চাঁদ হাতে পাওয়ার মতো অবাস্তব হয়ে যাচ্ছে । বর্তমানে বেশিরভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোই শিক্ষার্থীদের থেকে টাকা আদায়ের বুনো উল্লাসে মেতে উঠেছে। তাই মধ্যবিত্ত পরিবাররাই ছেলে মেয়েদের লেখাপড়ার খরচ চালাতেই হিমশিম খাচ্ছে আর নিম্নবিত্তদের কথা নাই বা বললাম।

সরকারি নির্দেশনা মতে, প্রত্যেক স্কুল ভর্তির সময় সরকার কতৃক নির্দেশিত টাকা শিক্ষার্থী থেকে গ্রহন করবে অথচ এর  কোনো বাস্তবায়ন লক্ষ্য করা যাচ্ছে না কোনো স্কুলেই। তাছাড়া এসএসসি পরীক্ষার ফর্ম ফিলাপের জন্য নির্ধারিত টাকার তুলনায় দুই তিন গুন এমনকি দশগুন বেশি টাকা নেওয়া হচ্ছে বেশ কিছু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলনগুলোতে। আর স্কুলের নামে কোচিং ব্যবসা তো এখন বেশ সাধারণ ঘটনায় পরিনত হয়েছে।

দুর্নীতির সংজ্ঞা অনুযায়ী নীতি বহির্ভুত যে কোনো কাজই দুর্নীতির আওতাভুক্ত। তাই  দুর্নীতির সংজ্ঞা অনুযায়ী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর এসব কাজ দুর্নীতির আয়তাভুক্ত। দুর্নীতি হলেও কি ? শিক্ষার্থীদের এই বাড়তি খরচ যে অভিভাবকদের বহন করতেই হচ্ছে আর এসব বাড়তি খরচ বহনের জন্য তাদের অভিভাবকদের উপর পড়ছে বাড়তি চাপ। দেখা যাচ্ছে এসব খরচ বহনের জন্য তারাও তাদের কর্মস্থলে দুর্নীতির শরণাপন্ন হচ্ছেন।

২০১৬ এর পরিসংখ্যান অনুযায়ী দুর্নীতিতে বাংলাদেশের  অবস্থান ১৩ তম । কিন্তু এরুপ চলতে থাকলে অচিরেই বাংলাদেশ দুর্নীতিতে আরো অগ্রসর হবে ।

তাহলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানই কি আমাদের দুর্নীতি শেখাচ্ছে ? আর যদি তাই হয় তাহলে শিশুদের প্রকৃত মানুষ হিসেবে কারা গড়ে তুলবে ?

 

*** প্রকাশিত মতামত লেখকের একান্তই নিজস্ব। বাংলা ইনিশিয়েটর-এর সম্পাদকীয় নীতি/মতের সঙ্গে লেখকের মতামতের অমিল থাকতেই পারে। তাই এখানে প্রকাশিত লেখার জন্য বাংলা ইনিশিয়েটর কর্তৃপক্ষ লেখকের কলামের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে আইনগত বা অন্য কোনও ধরনের কোনও দায় নেবে না।

>
বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।