প্রচ্ছদ » অনিয়ম » আল্লাহ কপালে যা রাখছে তাই হমু

আল্লাহ কপালে যা রাখছে তাই হমু

 হোসাইন কবির, বাংলা ইনিশিয়েটর, ঢাকা

ছবিঃ হোসাইন কবির

গরীব বা ধনী হোক সবারই স্বপ্ন আছে । স্বপ্ন কখনো জাতি ভেদে হয় না । আর সবারই স্বপ্ন দেখার অধিকার আছে ।  সাভাবিক শিশুদের মত বেচে থাকার অধিকার আছে সুবিধা বঞ্চিত শিশুদেরও। যেই বয়সে শিশুদের স্কুলে ব্যাগ কাধে নিয়ে যাওয়ার কথা, ঠিক এমন সময় এরা তাদের পরিবার এর হাল ধরা নিয়ে ব্যাস্ত। প্রতিটি  শিশুর সকাল একইভাবে  শুরু হয় না । কারও কাধে থাকে স্কুলের  ব্যাগ আবার কারো থাকে ময়লা কুড়ানোর বস্তা।  সাধারন শিশুদের দেখা যায় শ্রেণী কক্ষের বেঞ্চে। আর সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের  দেখা যায় ময়লার স্তুপে। প্রতিদিন এর মত এরা তাদের কাজ খুজে বেরায় সামান্য অর্থ সন্ধানে পরিবার এর হাল ধরার জন্য।
ঠিক এমন ভাবেই শুরু হয় বাবু আর সবুজের প্রতিটি সকালের গল্প ।

রাজু আর সবুজ দুই ভাই, থাকে ভাসানটেক এর ৩ নং বস্তিতে। তাদের দুই ভাই ছাড়াও আছে তার আরও দুই বড় বোন। বোনদের বিয়ে হয়ে গেছে। তার মা একজন হাপানি রোগী আর তাদের বাবা থাকে তাদের গ্রামের বাড়ি রংপুরে। তাদের পরিবারের কোন ধরনের ভরণপোষণ দেয় না তার বাবা।

রাজু এবং সবুজ এর মধ্য সবুজ বড়। কিন্তু দুই ভাই একই সাথে কাজ করে। তাদের সাথে আজ কথা হলো । তাদের  যখন প্রশ্ন করা হলো তোমরা কি কাজের ফাকে লেখা পড়া কর? সবুজ জবাব দিল, “ভাই লেখা পড়া করবার চাই, আম্মা দেয় না আমাগুর করতে। প্রতিদিন কামে পাঠায় দেয়”।

তাদের দৈনন্দিন আয় এর কথা জিজ্ঞাসা করা হলে বলে ” বেশি পাই না ২০০-৩০০ ট্যাকা পাই”। আর তিন বেলা খাবার এর কথা জিজ্ঞাসা করাতে বলে “সকালে কিছুই খাই না দুপুর এর দিকে কয়টা ভাত খাই আর কোন দিন ইনকাম ভাল থাকলে দুই বেলা ভালো খাওন  খাই”।

এই দুই ভাই প্রতিদিন সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত বিভিন্ন ময়লার স্তুপ ঘুরে ঘুরে ভাঙ্গাচুড়া জিনিসপত্র যোগার করে থাকে। এবং দিন শেষে এগুলো  প্লেনে(ভ্যান বিশেষ) করে নিয়ে যায় ৩ নং  ভাষানটেক বস্তিতে এবং সেখানে বিক্রি করে এসব মালামাল।

ভ্যান গাড়ির নাম প্লেন  দেয়ার কথা জিজ্ঞাসা করলে বাবু বলে “ভাই আমার প্লেনে চরার ইচ্ছা তাই রাখছি’।

“বড় হয়ে কি হতে চাও”  এমন প্রশ্নের জবাবে তারা বলে  “আল্লাহ কপালে যা রাখছে তাই হমু”। আমি হতভম্ব  হয়ে যাই তাদের কথা শুনে । কি তীক্ষ্ণ চাপা ক্ষোভ লুকিয়ে আছে তাদের কথার মাঝে ।

এমন বাবু আর সবুজ এর মত  প্রায়  ১.৭ মিলিয়ন শিশু আছে ভারতীয় উপমহাদেশে।  আর আমাদের বাংলাদেশে আছে প্রায়  ১.১ মিলিয়ন। আমরা সবাই বলি প্রতিটি শিশু আমদের দেশের বা একটি জাতির ভবিষ্যৎ, কিন্তু এই শিশুদের সাহায্য দানের জন্য কয়জন এগিয়ে আসছে?

>
বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।