প্রচ্ছদ » সাইন্স ভিউ » তথ্য প্রযুক্তি » বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগামী ৫ সুপার কম্পিউটার

বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগামী ৫ সুপার কম্পিউটার

প্রকাশ : ১৪ মার্চ ২০১৭৮:০৭:২৯ অপরাহ্ন

[pfai pfaic=”fa fa-user fa-spin ” pfaicolr=”” ] তথ্য প্রযুক্তি ডেস্ক | বাংলা ইনিশিয়েটর

কম্পিউটার জগতে এরা এক একটি নক্ষত্র। সাধারণত যে কম্পিউটার আমরা ব্যবহার করে থাকি, তার থেকে কয়েকশো গুণ দ্রুত এবং অঢেল জায়গা বিশিষ্ট এগুলি। এক কথায় এরা সুপার কম্পিউটার। ১৯৬০-এ কন্ট্রোল ডেটা কর্পোরেশনের ইঞ্জিনিয়ার সেমর ক্রে-র হাত ধরে প্রথম সুপার কম্পিউটার বাজারে আসে। এর পরের পাঁচ দশকে বিপুল পরিবর্তন ঘটে গিয়েছে কম্পিউটার জগতে। আবহাওয়া দফতর, পারমাণবিক প্ল্যান্টের মতো গুরুত্বপূর্ণ ডেটা নির্ভর সংস্থায় সুপার কম্পিউটারের অবদান অনস্বীকার্য। বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগামী সুপার কম্পিউটারগুলি সম্বন্ধে জেনে নেওয়া যাক এক নজরে।

 

সানওয়ে তাইহুলাইট

এই মুহূর্তে চিনের তৈরি সানওয়ে তাইহুলাইট বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুততম কম্পিউটার। সেরা পাঁচশোর তালিকায় এক নম্বরে রয়েছে সানওয়ে তাইহুলাইট। চিনের উসির ন্যাশনাল সুপার কম্পিউটিং সেন্টারের তত্ত্বাবধানে গত বছর জুলাইয়ে প্রকাশ পায় সুপার কম্পিউটারটি। ২০ পেটা বাইট (২০ লক্ষ গেগাবাইট) জায়গা সম্পন্ন এই কম্পিউটারটির গতি ৯৩.০১ পেটা বাইট ফ্লপস। কম্পিউটারটি তৈরি করতে খরচ পড়েছে ২৭ কোটি ৩০ লক্ষ মার্কিন ডলার।

 

তিয়ানহি-২ 

দ্রুততম সুপার কম্পিউটার হিসাবে চিয়ানহি-২ তৈরি করে দ্বিতীয় স্থানেও রয়েছে চিন। ২০১৩তে সুপার কম্পিউটারটি নিয়ে আসে গুয়াংঝোর ন্যাশনাল সুপার কম্পিউটার সেন্টার। ১২.৪ পেটা বাইট (১২ লক্ষ ৪০ হাজার গেগাবাইট) ডেটা ধারণ করার ক্ষমতা রয়েছে এই কম্পিউটারের। তিয়ানহি-২ তৈরি করতে খরচ হয়েছে প্রায় ৩৯ কোটি মার্কিন ডলার। তিয়ানহি-২-র স্পিড প্রতি সেকেন্ডে ৩৩.৮৬ পেটা বাইট ফ্লপ।

 

ক্রে টাইটান

তৃতীয় স্থানে রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সুপার কম্পিউটার ক্রে টাইটান। বিজ্ঞান ভিত্তিক প্রোজেক্টের জন্য ওক রিজ ন্যাশনাল ল্যাবরেটরি এই সুপার কম্পিউটারটিকে ব্যবহার করছে। চিনের তৈরি প্রথম দু’টি সুপার কম্পিউটারের থেকে বেশি স্পেস রয়েছে এই কম্পিউটারের। ৪০ পেটা বাইট (৪০ লক্ষ গেগা বাইট) জায়গা সম্পন্ন কম্পিউটারের স্পিড রয়েছে ১৭.৫৯ পেটা বাইট ফ্লপ প্রতি সেকেন্ড (ফ্লোটিং-পয়েন্ট অপারেশনস)। টাইটান তৈরি করতে খরচ হয়ছে ৯ কোটি ৭০ লক্ষ মার্কিন ডলার।

 

আইবিএম সিকোয়া

৩ হাজার বর্গ ফুট জায়গা জুড়ে আইবিএম সিকোয়া সুপার কম্পিউটারটি রাখা রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের লরেন্স লিভারমোর ন্যাশনাল ল্যাবরেটরিতে। ২০১২ তে এই কম্পিউটারটি তৈরি করে আইবিএম সংস্থা। কম্পিউটারটি প্রায় ১৬.৩২ পেটা বাইট ফ্লপ প্রতি সেকেন্ড স্পিডে ডেটা ট্রান্সফার করতে পারে।

 

ফুজিটসু কে কম্পিউটার

কে কম্পিউটার নামে পরিচিত জাপানের এই সুপার কম্পিউটারটি। এই কম্পিউটারের ডেটা ট্রান্সফারের স্পিড ১০.৫১ পেটা বাইট ফ্লপ প্রতি সেকেন্ড। ২০১১-র জুন মাসে ফুজিটসু তৈরি করে সুপার কম্পিউটারটি।

বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।