প্রচ্ছদ » মুক্তমঞ্চ » আমার কথা » কই আছে আমাদের নারীদের মর্যাদা?

কই আছে আমাদের নারীদের মর্যাদা?

প্রকাশ : ১৮ মার্চ ২০১৭৯:৫৭:৫৮ অপরাহ্ন

[pfai pfaic=”fa fa-user fa-spin ” pfaicolr=”” ]  সুরাইয়া আক্তার জীম

রেবা আর মেনুকা। এবার দশম শ্রেণীর ছাত্রী। বরাবরই রেবা প্রথম স্থান দখল করে আসছে। হয়ত এজন্যই এখনো সে পড়াশোনা চালিয়ে যেতে পারছে।

রেবা আর মেনুকা একদিন একসাথে টিফিন করছিল, মেনুকা খেয়াল করল রেবা প্রতিদিনই বাইরের খাবার খায়। তাছাড়াও কখনও কেউ রেবাকে স্কুলে দিয়ে যায় না, নিয়েও যায় না। তাই মেনুকা একদিন তাকে জিজ্ঞেস করেই ফেললো, তোকে যে কেউ কখনো নিতে আসে না ? রেবা কিছু বলতে না পেরে ছলছল চোখে চলে গেল।

যাওয়ার পথে রেবার মনে পরে গেল সেই আত্মীয় এর কথা। কোন এক আত্মীয় এর কাছ থেকে শুনেছে, সে নাকি তাদের পরিবারের জন্য অভিশাপ। রেবার জন্মের পর তার মা কোন এক অসুখে জানতে পায় সে আর মা হতে পারবে না। এ নিয়ে শাশুড়ির নানা কথা তো শুনতেই হয়, তাছাড়াও মেয়ে সন্তান জন্ম দেওয়ায় ও নানা বাজে মন্তব্য শুনতে হয়। আর তাই সে রেবাকে দেখতে পারে না।

এরই মাঝে মেনুকার আর রেবার যোগাযোগ না হলেও ৭ বছর পর-
কোন এক রেস্টুরেন্ট এ তাদের দেখা হয়। কথা বলতে বলতে বেরিয়ে আস মেনুকার দুঃখস্পর্শী গল্প। ভার্সিটি প্রথম বর্ষেই বিয়ে হয় তার। এ পর্যন্ত এমন একটি দিন যায়নি যেদিন শাশুড়ি তার সাথ ভালোভাবে কথা বলেছে। স্বামীও নানাভাবে অত্যাচার করে তাকে। মেনুকা রেবাকে তার সম্পর্কে জিজ্ঞেস করতেই, রেবা হাসতে হাসতে বললো এসএসসি পরীক্ষার পরই বাবা মা তাকে বিয়ে চাইলে নানা বিরোধিতা করে সে। স্কলারশিপ পেয়ে পড়ালেখা চালিয়ে গিয়েছে সে। বর্তমানে ভালো বেতনে সরকারি এক প্রতিষ্ঠানে চাকরি করছে। পরিবারের সবার সাথে সম্পর্ক ভালো হলেও এখনও বিয়ে করে নি বলে নিন্দার শেষ নেই ।

-কই আছে আমাদের নারীদের মর্যাদা? মা হতে পারবে না বলেও দোষ আবার মেয়ে সন্তান জন্ম দিলেও দোষ। মেয়ে হয়ে জন্ম নিলেন আমাদের দোষ। একজন বিয়ে করেছে বলে অত্যাচারের স্বীকার অপরদিকে অন্যজন বিয়ে করেনি বলেও শুনতে হয় নানা নিন্দা। আমরা মেয়েরা কী আসলেই আমাদের অধিকার পাচ্ছি? আর তাই হয়তো কোন এক মহাপুরুষ বলিয়া ছিলেন,

“মেয়ে হয়ে জন্ম নেওয়া সহজ ,
তবে মেয়ে হয়ে বেঁচে থাকাটা কঠিন।”

বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।