প্রচ্ছদ » খেলাধুলা » মাসরাফির শেষ টি টুয়েন্টি ম্যাচে টাইগারদের জয়

মাসরাফির শেষ টি টুয়েন্টি ম্যাচে টাইগারদের জয়

শাফিন রাহমান | বাংলা ইনিশিয়েটর

৬ মার্চ  বাংলাদেশের প্রত্যেক মানুষের জন্য না হোক অন্তত মাসরাফির জন্য একটি রোমাঞ্চকর দিন। নিজের শেষ টি টুয়েন্টিতে  শ্রীলংকার সাথে ৪৫ রানের এক বিশাল জয়!! এ জয়ে ম্যাচে টাইগাররা এনেছে সমতাও ! তাই জয় দিয়েই শ্রীলংকা সফর শেষ হলো টাইগারদের।

২ ম্যাচের টিটুয়েন্টি সিরিজের ২য় ম্যাচ তো বটেই। এর সাথে যে বাঘ বাহিনীর সব থেকে বড় বাঘ মাশরাফির বাংলাদেশের জার্সিতে শেষ ম্যাচ। টস জিতেই বাংলাদেশ প্রথমে ব্যাটিং এ নামে। ম্যাচের শুরুটা টাইগাররা ভালোই করে ছিলো। সৌম্য এবং তামিমের জায়গায় স্থাল পাওয়া ইম্রুল কায়েস এক সাথে ভালোই শুরু করে। প্রথম থেকেই বেশ মারমুখি হয়েই খেলছিলেন তারা। পাওয়ার প্লের শেষে তাদের অর্জিত রান ছিলো ৬৮। এর মধ্যে সৌম্য আউট হয়ে গেলেও সাব্বির এবং কায়েস মিলে বেশ ভালো খেলা ধরে রেখেছিলেন তারা। ১০ ওভারেই টাইগাররা ১০০ রান করতে সক্ষম হন। যে জায়গায় সব মিলয়ে মোটামোটি ভালোই যাচ্ছিলো বাংলাদেশের অপর দিকে শ্রীলংকানরা যেনো কিছুটা আতংকেই ছিলো। তবে সেই আতংক খুব সহজেই ঘুচে যায় মালিংগার হ্যাট্রিকের মাধ্যমে। পরিশেষে ২০ ওভারে বাংলাদেশের অর্জিত রান ছিলো ১৭৬।

ম্যাচের দ্বিতীয় অধ্যায়ে বাংলাদেশের গত ম্যাচের মত এই ম্যাচেও ছিলো কিছুটা চমক। বলিং শুরু করেন সাবিক আল হাসান। তার করা প্রথম বলে বাউন্ডারি মারলেও দ্বিতীয় বলেই বোল্ড আউট হন গতম্যাচের বাংলাদেশের আতংক কুসাল পেরেরা। সাকিবের করা দ্বিতীয় ওভারে আবারো তিনি উইকেট তুলে নেননি। ৩য় ওভারে মিরাজের বলে ক্যাচ উঠলেও সেই সুযোগটি হারান অধিনায়ক মাশরাফি।তবে ঠিক তার পরের ওভারেই মাহমুদুল্লাহ এর বলে ক্যাচ তুলে আউট হোন থারাংগা। গুনারাতনে এবং সিরিওয়ারদানা যেনো তারই আদর্শ নিয়ে মাঠে আসেন এবং ম্যাচের প্রথম করা মুস্তাফিজের ওভারের পর পর দুই বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফিরে যান প্যাভিলনে। ৫ ওভারে ৫ উইকেটের বিনিময়ে তাদের ছিলো ৪০ রান।

পাওয়ার প্লে শেষে শ্রীলংকা ৪৬ রান করতে সক্ষম হয়েছিলো। এর পর তারা কিছুটা খেলা ধরতে সক্ষম হয় এবং ১১ ওভারে তাদের রান থাকে ৮২। তারা মাঝে মাঝেই কিছুটা মার মুখি হচ্ছিলো। পেরেরা এবং চামারা মিলে শ্রীলংকাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকেন ধীরে ধীরে। কিন্তু তাদের পথে আবারো কাটা হয়ে দাঁড়ায় সাকিব। তার করা ১২ নাম্বার ওভারে স্ট্যাম্পিং এ আউট হন থিসারা পেরেরা। তারপর সবাই যেটার অপেক্ষায় ছিলো শেষ ম্যাচের মাশরাফির উইকেট। মাশরাফি ম্যাচের ১৫ নাম্বার ওভারের পঞ্চম বলে তুলে নেন প্রাসান্নার উইকেটটি এবং তা করেন বোল্ড করে। ঠিক তার পরের ওভারেই মুস্তাফিজ তুলে নেন আরো দুইটি উইকেট।সেই সময় তাদের ১২৪ রানে ৯ উইকেট। অবশেষে ১৩১ রানে লংকানরা তাদের যাত্রা শেষ করে।সর্বশেষ উইকেটটি নেন সাইফুদ্দিন। সিরিজের ২য় ম্যাচে জয় লাভের মাধ্যমে সিরিজ ড্র করে বাংলাদেশ। এবং এর সাথে মাশরাফির ক্যাপ্টেন্সির আর তার শেষ ম্যাচেও জয় তুলে নিতে সক্ষম হয় টাইগাররা।

>
বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।