প্রচ্ছদ » বাংলাদেশ » আজ আন্তর্জাতিক ক্রীড়া দিবস

আজ আন্তর্জাতিক ক্রীড়া দিবস

  সাব্বির রায়হান অপি | বাংলা ইনিশিয়েটর

আজ ৬ এপ্রিল। আন্তর্জাতিক ক্রীড়া দিবস। সার্বিক উন্নয়ন ও শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষে এ দিবসটি পালিত হয়ে আসছে। শুধু আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নয়। এই দিবসটি আমাদের দেশে জাতীয় ক্রীড়া দিবস হিসেবেও পালিত হয়। ১৮৯৬ সালের এই দিনে গ্রীসের অ্যাথেন্সে সর্বপ্রথম আধুনিক অলিম্পিকের অাসরের পর্দা ওঠে। পরবর্তিকালে এই দিনটিকে আন্তর্জাতিক ক্রীড়া দিবস হিসাবে পালিত হয়। এ দিনটিকে ওয়ার্ল্ড স্পোর্টস ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড পিস ডে হিসেবে পালন করে আসছে জাতিসংঘ। ২০১৫ সালের ৬ এপ্রিলকে ইন্টারন্যাশনাল ডে অব স্পোর্টস ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড পিস ঘোষণা করেছে জাতিসংঘ। ক্রীড়ার মাধ্যমেই জাতিসংঘের শান্তি ও উন্নয়নের বাণী প্রচার করা সহজ। কারণ, ক্রীড়ার আবেদন সার্বজনীন।

প্রতি বছর এই দিনে বিভিন্ন ক্রীড়া প্রতিষ্ঠানসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানগুলো তরুন প্রজন্মসহ সকলকে খেলাধুলার প্রতি আকর্ষন করার নানা উদ্বোগ গ্রহন করে। যা ক্রীড়াসূলভ মনোভাবের পাশাপাশি বিশ্বে শান্তি প্রতিষ্ঠায়ও গুরুত্বপূর্ন অবদান রাখে।

আন্তর্জাতিক দিবসের সাথে মিল রেখে ২০১৬ সালের ৫ সেপ্টেম্বর, ৬ এপ্রিলকে জাতীয় ক্রীড়া দিবস হিসাবে ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সে হিসাবে এ বছরই প্রথম বারের মত জাতীয় পর্যায়ে ক্রিড়া দিবস পালিত হতে যাচ্ছে। ২০১৪ সালে খেলাধুলাকে মাঠপর্যায়ে আরও ছড়িয়ে দিতে ‘জাতীয় ক্রীড়া দিবস’ নামে একটি দিবস ঘোষণার সুপারিশ করেছে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়-সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। পরবর্তিতে তা বাস্তবায়ন না হলেও দুই বছর পর তা বাস্তবে রুপ নেয়।

শিশু বিশেষজ্ঞরা মনে মনে করেন, বর্তমানের প্রযুক্তি নির্ভর বিশ্বে শিশুরা ভিডিও গেমস সহ প্রযুক্তি কেন্দ্রীক হয়ে পড়ছে। ফলে তাদের মাঝে বাহিরে বের হওয়ার প্রতি যেই অনিহা তৈরি হয়েছে তা দূর করে খেলাধুলার প্রতি আগ্রহ সৃষ্টিতে এই দিবসটি গুরুত্বপূর্ন অবদান রাখবে।

>
বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।