প্রচ্ছদ » অনিয়ম » ব্যস্ত মহাসড়ক এখন আবর্জনার স্তুপ

ব্যস্ত মহাসড়ক এখন আবর্জনার স্তুপ

মেহেদী হাসান রুমী, বাংলা ইনিশিয়েটর

রাজধানী ঢাকার অন্যতম ব্যস্ততম এলাকা যাত্রাবাড়ি কিন্তু ব্যস্ততম সড়ক হলেও নেই কোনো উন্নতির ছাপ, বরং যেখানে সেখানে ময়লা আবর্জনা দিয়ে সড়ক ও ফুটপাত গুলো পরিপূর্ণ ৷ স্থানীয় লোকদের অভিযোগ, এই এলাকায় রাস্তাঘাট নিয়মিত পরিষ্কার করে না ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) পরিচ্ছন্নতা কর্মীগন। এতে ধীরে ধীরে সড়কগুলোতে ময়লা-আবর্জনার স্তূপ হয়ে যাচ্ছে।

যাত্রাবাড়ি এলাকাটি ডিএসসিসির ৫০ নম্বর ওয়ার্ডের আওতাধীন। পশ্চিম যাত্রাবাড়ী, উত্তর-পশ্চিম যাত্রাবাড়ী, উত্তর যাত্রাবাড়ী, দক্ষিণ-পূর্ব যাত্রাবাড়ি, দক্ষিণ যাত্রাবাড়ি, শহীদ ফারুক সড়ক ও ওয়াপদা কলোনি নিয়ে এই ওয়ার্ড গঠিত। এখানকার সাধারন জনগনের কাছে এই প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তারা বলেন, এই ওয়ার্ড পরিষ্কার রাখতে ডিএসসিসির প্রায় ৫০ জন পরিচ্ছন্নতা কর্মী আছেন। কিন্তু এর মধ্যে ১০ থেকে ১৫ জন কর্মী নিয়মিত কাজে অংশগ্রহণ করেন না। বাকিরাও ঠিকমতো কাজ করেন না বলে অভিযোগ রয়েছে ৷ এতে সড়কে ময়লা-আবর্জনা ছড়িয়ে থাকে এবং দুর্গন্ধ ছড়ায়। বিষয়টি ডিএসসিসির সংশ্লিষ্ট বিভাগকে জানানো হয়েছে বলে তারা জানান। তারা আরো বলেন, এই ওয়ার্ডে আরও পরিচ্ছন্নতা কর্মী দরকার। এই অল্পসংখ্যক কর্মী দিয়ে পুরো ওয়ার্ড পরিচ্ছন্ন রাখা সম্ভব নয়। পরিচ্ছন্নতা কর্মী চেয়ে ডিএসসিসিতে আবেদন করা হয়েছে বলে জানান এলাকার স্থানীয় বাসীন্দারা।

যাত্রাবাড়ির প্রায় অধিকাংশ সড়কেই ময়লা-আবর্জনা ছড়িয়ে রয়েছে। যাত্রাবাড়ী আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের সামনে, ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-মাওয়া মহাসড়ক এবং ডেমরা রোড, যাত্রাবাড়ী চৌরাস্তা, ফরিদাবাদ, ওয়াসা রোড এবং মেয়র মোহাম্মদ হানিফ ফ্লাইওভারের নিচের সড়কে ময়লা-আবর্জনার স্তূপ দেখে মনে হবে তারা যেন পাকাপোক্তভাবে তারা স্থান করে নিয়েছে ৷ এর ফলে আবর্জনা পচে বাতাসে ছড়াচ্ছে দুর্গন্ধ। অধিকাংশ দোকানি মাস্ক পরে দোকানে বসে আছেন। পথচারীরা ধুলাবালি ও দুর্গন্ধ থেকে বাঁচতে নাক-মুখ ঢেকে চলছেন। এলাকাগুলোতে কোনো পরিচ্ছন্নতা কর্মী দেখা যায়নি। ফুটপাতে রাখা অধিকাংশ ময়লার পাত্র (ওয়েস্ট বিন) খালি। এভাবে চলতে থাকলে একদিন রাস্তার বদলে ময়লার স্তূপের উপর দিয়েই হয়ত চলাফেরা করতে হবে।

>
বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।