প্রচ্ছদ » বাংলাদেশ » কলম সৈনিক হুমায়ুন কবিরের মৃত্যু দিবস আজ

কলম সৈনিক হুমায়ুন কবিরের মৃত্যু দিবস আজ

প্রকাশ : ৬ জুন ২০১৭২:০৭:০২ অপরাহ্ন

[pfai pfaic=”fa fauser fa-spin ” pfaicolr=”” ]  সুরাইয়া আক্তার জীম, বাংলা ইনিশিয়েটর

 

আজ ৬ই জুন। ১৯৭২ সালের এই দিনেই মৃত্যুবরণ করেন বিংশ শতাব্দীর বাংলা ভাষার প্রগতিশীল কবি হুমায়ুন কবির। হুমায়ুন কবির ১৯৪৮ সালের ২৫ ডিসেম্বর ঝালকাঠি জেলার রাজাপুর থানার সাকরাইল গ্রামে জন্মগ্রহন করেন।

তিনি ১৯৬৩ সালে ব্রজমোহন কলেজ থেকে ম্যাট্রিক, ১৯৬৫ সালে একই কলেজ থেকে আই. এ. পাস করেন । ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তিনি ১৯৬৮ সালে বাংলায় অনার্স এবং ১৯৬৯ সালে বাংলায় এম. এ. পাস করেন। ১৯৭০ সালে বাংলা একাডেমী গবেষণা বৃত্তিলাভ করেন। পরবর্তীতে ১৯৭২ সালে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগে লেকচারার হিসেবে যোগ দেন।

বাংলা একাডেমীতে তাঁর গবেষণার বিষয় ছিলো সাম্প্রতিক জীবন চৈতন্য ও জীবনানন্দ দাশের কবিতা। উনসত্তরের গণ-অভ্যুত্থান, সত্তরের আন্দোলন, একাত্তরের স্বাধীনতাযুদ্ধ ইত্যাদি ঘটনাস্রোত তাঁর কবিচেতনার সর্বোচ্চ বিকাশ ঘটায়। ফলস্বরুপ, ‘কুসুমিত ইস্পাত’ (১৯৭২) নামে কাব্যে মাধ্যমে আলোড়ন তৈরী করেন।

১৯৭২ সালের প্রথম দিকে তিনি গোপন বিপ্লবী রাজনৈতিক কর্মসূচিতে অংশ নেন এবং বাম প্রগতিশীল সংগঠনের সঙ্গে জড়িত হন। এ জন্য জেলেও যেতে হয়েছে তাকে। ১৯৭১ সালে তিনি ‘লেখক সংগ্রাম শিবির’ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। পরে নাম পরিবর্তন করে ‘বাংলাদেশ লেখক শিবির’ রাখা হয়।  বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে যখন লেখকরা আন্দোলনে লিপ্ত হতে সাহিত্য প্রতিবাদের পাশাপাশি রাজপথে নেমেছিল তখন তাদের একজন ছিলেন হুমায়ুন কবির।

১৯৭২ সালের ৬ই জুন অজ্ঞাত আততায়ীর গুলিতে হুমায়ুন কবির নিহত হন। এ সময়ে তিনি ইন্দিরা রোডে একটি ভাড়া বাসায় বাস করতেন। জনাব হুমায়ুনের স্ত্রী ছিলেন তাঁরই সহপাঠিনী সুলতানা রেবু। মৃত্যুকালে হুমায়ুন এক পুত্র, আদিত্য কবির ও এক কন্যার, অদিতি কবীর জনক ছিলেন। মৃত্যুর কিছুদিন পর জন্মগ্রহণ করে তাঁর দ্বিতীয় পুত্র অনিন্দ্য কবির। জীবদ্দশায় তাঁর কোনো গ্রন্থ প্রকাশিত না হলেও পত্রপত্রিকায় তাঁর অগণিত প্রবন্ধ ছড়িয়ে রয়েছে। ১৯৮৫ সালের ২১ ফেব্রুয়ারিতে বাংলা একাডেমি থেকে ‘হুমায়ুন কবির’ রচনাবলি প্রকাশিত হয়।

বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।