প্রচ্ছদ » আন্তর্জাতিক » শুভ জন্মদিন বান কি মুন !

শুভ জন্মদিন বান কি মুন !

 সাব্বির রায়হান অপি | বাংলা ইনিশিয়েটর

১৯৪৪ সালের আজকের দিনে কোরিয়ার উত্তর জাংজিয়ং-এর ইয়ামসিয়ংয়ে জন্মগ্রহণ করেন একটি শিশু, নাম বান কি মুন।

পরবর্তীকালে যিনি হয়ে ওঠেন বিশ্বের সর্ববৃহৎ সংঘঠন জাতীসংঘের অষ্টম মহাসচিব। ১ জানুয়ারি, ২০০৭ সালে তিনি জাতীসংঘের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। এর পূর্বে ১৯৭০ সালে বান পররাষ্ট্র যোগদান করেন এবং নয়াদিল্লীতে নিয়োগ হন।পরে তিনি দক্ষিণ কোরিয়ার পররাষ্ট্র দফতরে জাতিসংঘ বিভাগে কাজ করেন কিছুদিন পর তাকে নিউইয়র্কে জাতিসংঘের দক্ষিণ কোরিয়ার স্থায়ী পর্যবেক্ষকের ফার্স্ট সেক্রেটারি পদে নিয়োগ দেয়া হয়৷ ১৯৯১ সালে দক্ষিণ কোরিয়া জাতিসংঘের পূর্ণ সদস্য হলে বান কি মুনকে জাতিসংঘ বিভাগের পরিচালক পদে নিয়োগ দেয় হয়৷ এছাড়া রিপাবলিক অফ কোরিয়ার ওয়াশিংটন ডিসির এমবাসিতে তিনি দু’বার নিয়োগ পেয়েছেন৷ ১৯৯৫ সালে বান কি মুন পলিসি প্ল্যানিং অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশনের ডেপুটি মিনিস্টার পদে কাজ করেন৷ ঠিক তার পরের বছরই তিনি রাষ্ট্রপতির ন্যাশনাল সিকিউরিটি অ্যাডভাইজর হিসেবে নিয়োগ লাভ করেন৷ ২০০৪ সাল থেকে ১ নভেম্বর২০০৬ পর্যন্ত জানুয়ারিতে বান কি মুন সাউথ কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রী ছিলেন।

বান কি মুন সিউল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি থেকে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন৷ তারপর হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের জন এফ কেনেডি স্কুল অফ গভর্নমেন্ট থেকে ১৯৮৫ সালে লোকপ্রশাসনে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন।

৭ম মহাসচিব কোফি আন্নানের পর ২০০৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে জাতিসংঘের মহাসচিব নির্বাচনের প্রার্থি হন বান কি মুন৷ জাতিসংঘের নতুন মহাসচিব নির্বাচনের জন্য চারবার ভোটাভুটি হয়৷ প্রতিটি ভোটাভুটিতেই বান কি মুন শীর্ষে ছিলেন। ভোটাভুটিতে বান কি মুন তার পক্ষে ১৪টি ভোট পান। তিনিই একমাত্র প্রার্থী ছিলেন যাকে জাতিসংঘের স্থায়ী সদস্য দেশের ভেটোর মুখোমুখি হতে হয়নি। ১৪ ডিসেম্বর ২০০৬ বান কি মুন জাতিসংঘের অষ্টম মহাসচিব হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন।

৩১ ডিসেম্বর, ২০১৬ সালে তিনি কার্যভার ত্যাগ করেন। জাতিসংঘের বর্তমান মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুতারেস।

>
বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।