প্রচ্ছদ » বাংলাদেশ » ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

 সাব্বির রায়হান অপি| বাংলা ইনিশিয়েটর

বাংলাদেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ শিক্ষার্থীদের স্বপ্ন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ১৯২১ সালের আজকের দিনে অর্থাৎ ১লা জুলাই স্থাপিত হয়। প্রতিষ্ঠার এই দিনটি প্রতিবছর “ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিবস” হিসেবে পালন করা হয়।

এটি বাংলাদেশের একমাত্র বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে এশিয়া উইকের পক্ষ থেকে শীর্ষ ১০০ বিশ্ববিদ্যালয়ে জায়গা করে নিয়েছে। ব্রিটিশ ভারতে তৎকালীন শাসকদের অন্যায্য সিদ্ধান্তে পূর্ববঙ্গের মানুষের প্রতিবাদের ফল হচ্ছে এই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। ১৯১২ সালের ৩০ জানুয়ারি ঢাকার নবাব স্যার সলিমুল্লাহ, ধনবাড়ীর নবাব সৈয়দ নওয়াব আলী চৌধুরী, শেরে বাংলা এ. কে. ফজলুল হক এবং অন্যান্য নেতৃবৃন্দ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার আবেদন জানালে তার তিন দিন পর তৎকালীন ব্রিটিশ ভারতের ভাইসর লর্ড হার্ডিঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার প্রতিশ্রুতি দেন।

এরপর ২৭ মে ঢাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিগন আনুষ্ঠানিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার জন্য প্রস্তাব দেয়। ১৯১৩ সালে প্রকাশিত হয় নাথান কমিটির ইতিবাচক রিপোর্ট এবং সে বছরই ডিসেম্বর মাসে সেটি অনুমোদিত হয়। পরে ১৯২০ সালের ১৩ মার্চ ভারতীয় আইন সভা পাশ করে ‘দি ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যাক্ট (অ্যাক্ট নং-১৩) ১৯২০’।

১৯১৪ সালে প্রথম বিশ্বযুদ্ধ শুরু হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দেয়। পরে ১৯১৭ সালের মার্চ মাসে ইম্পেরিয়াল লেজিসলেটিভ কাউন্সিলে সৈয়দ নওয়াব আলী চৌধুরী সরকারের কাছে অবিলম্বে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বিল পেশের আহ্বান জানালে ১৯২০ সালের ২৩ মার্চ গভর্নর জেনারেল এ বিলে সম্মতি দেন। যা ছিলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠার ভিত্তি। নানা প্রতিকূলতা দূর করে ১৯২১ সালের ১ জুলাই একটি আবাসিক বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় তার যাত্রা শুরু করে।

কলা, বিজ্ঞান ও আইন এই তিনটি অনুষদের অন্তর্ভুক্ত ছিল সংস্কৃত ও বাংলা, ইংরেজি, শিক্ষা, ইতিহাস, আরবি, ইসলামিক স্টাডিজ, ফারসী ও উর্দু, দর্শন, অর্থনীতি ও রাজনীতি, পদার্থবিদ্যা, রসায়ন, গণিত এবং আইন এই ১২টি বিভাগ।

প্রথম শিক্ষাবর্ষে বিভিন্ন বিভাগে মোট ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা ছিল ৮৭৭ জন এবং শিক্ষক সংখ্যা ছিল ৬০ জন। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম ছাত্রী লীলা নাগ (ইংরেজি বিভাগ; এমএ-১৯২৩)।

বিশ্ববিদ্যালয়টিতে বর্তমানে ১৩ টি অনুষদ, ৮২ টি বিভাগ, ১১ টি ইন্সটিটিউট এবং ৩৯ টি গবেষণা কেন্দ্র রয়েছে। এছাড়া ছাত্র-ছাত্রীদের থাকার জন্যে রয়েছে ২০ টি আবাসিক হল ও হোস্টেল। বর্তমানে দেশের সর্ব প্রাচীন এই বিশ্ববিদ্যালয়ে অপরাজেয় বাংলা, শহীদ মিনার, সন্ত্রাস বিরোধী রাজু স্মারক ভাস্কর্য, স্বোপার্জিত স্বাধীনতা, দোয়েল চত্বর, তিন নেতার মাজার, ঢাকা গেইট, স্বাধীনতা সংগ্রাম, স্বামী বিবেকানন্দ ভাস্কর্য, ঘৃণা স্তম্ভ, মধুদার ভাস্কর্য, সপ্তশহীদ স্মৃতিস্তম্ভ, বৌদ্ধ ভাস্কর্য।

২৩ টি শিক্ষাঙ্গন নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়টির নীতিবাক্য সত্যের জয় সুনিশ্চিত। বর্তমান আচার্য রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ ও উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক। ঢাকার ঐতিহ্যবাহী রমনায় স্থাপিত এই বিশ্ববিদ্যালয়টিতে প্রায় ৩৭,০০০ জন শিক্ষার্থী ও ১৮১৭ জন অ্যাকাডেমিক কর্মকর্তা ও ৩,৪০৮ জন প্রশাসনিক কর্মকর্তা রয়েছে।

>
বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।