প্রচ্ছদ » আন্তর্জাতিক » ঠিক কী কারনে আত্মহত্যা করেছিলো চেস্টার?

ঠিক কী কারনে আত্মহত্যা করেছিলো চেস্টার?

 মুসাররাত আবির জাহিন | বাংলা ইনিশিয়েটর

‘লিংকিন পার্ক’ তারকা চেস্টার বেনিংটন আর নেই। নিজ বাসভবনে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি। বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সকাল নয়টার কিছুক্ষণ আগে ক্যালিফোর্নিয়ায় নিজ বাসভবন থেকে গলায় দড়ি দিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করেন স্থানীয় পুলিশ। মৃত্যুর সময় তাঁর বয়স হয়েছিল ৪১ বছর। ব্যক্তিগত জীবনে তাঁর দুইজন স্ত্রী ও ৬ টি সন্তান রয়েছে।

‘লিংকিন পার্ক’ যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া রাজ্যের লস অ্যাঞ্জেলস শহরে অবস্থিত রকব্যান্ড। ১৯৭৬ সালের ২০ মার্চ জন্ম নেওয়া চেস্টার বেনিংটন ছিলেন একাধারে অভিনেতা,গায়ক ও গীতিকার। তবে শুরুটা অভিনয় দিয়ে হলেও ‘লিংকিন পার্ক’ এর সহযোগী গীতিকার ও ভোকালিস্ট হিসেবেই তিনি জনপ্রিয়তা পান। তাঁর অভিনব কন্ঠের জন্যই ২০০০ সাল থেকে এখন পর্যন্ত কোটি কোটি সঙ্গীতানুরাগীরা এই চেইনস্মোকার, জাস্টিন বিবারদের যুগেও ‘লিংকিন পার্ক’ এর গান শুনে থাকে। সংগীত জগতে তাঁর অসামান্য প্রতিভার জন্য তিনি ‘শ্রেষ্ঠ ১০০ হেভিমেটাল ভোকালিস্ট’ এর তালিকায় স্থান পান।

তাঁর এই আত্মহত্যার খবর সবার আগে প্রকাশ করে ‘ টিএমযেড’ নামের এক ওয়েবসাইট। এরপর ‘দ্যা টেলিগ্রাফ’, ‘দ্যা সান’ থেকে শুরু করে একে একে সব জায়গায় তাঁর এই প্রয়ানের খবর ছড়িয়ে পড়ে। ফেসবুক – টুইটারে নেমে আসে ঘন শোকের ছায়া। তাঁর আত্মহত্যার মূল কারণ মূলত অতিরিক্ত ড্রাগস সেবন, মদ্যপ হয়ে ওঠা, ব্যক্তিজীবনে অশান্তি ও মানসিক অবসাদ। তিনি যে আত্মহত্যা করবেন তা তিনি বেশ কয়েকবারই জনসম্মুখে বলেছেন।

একবার এক ব্যক্তি তাঁকে অকথ্য ভাষায় কিছু বলেছিলেন যার ফলে তিনি কিছুদিন অবসাদে চলে গিয়েছিলেন। তখনই তিনি বেশ জোর দিয়েই বলেছিলেন যে তিনি আত্মহত্যা করবেন। সম্প্রতি তিনি আত্মহত্যার আগে পল নামের এক বন্ধুকে চিঠিতে ইঙ্গিত দিয়েছলেন যে তিনি ভালো নেই, তিনি তাঁর জীবন নিয়ে হতাশ। চিঠিটি তাঁর মৃত্যুর পরে প্রকাশ পায়। তাঁর এই আকস্মিক প্রয়ানে পুরো সংগীতজগত স্তব্ধ হয়ে পড়েছে। তাঁর এই অপূর্ণতা কেউ পূরণ করতে পারবে না।

>
বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।