প্রচ্ছদ » খেলাধুলা » অবস্থা বুঝে আক্রমনাত্মক হবেন সাব্বির

অবস্থা বুঝে আক্রমনাত্মক হবেন সাব্বির

 সাব্বির রায়হান অপি | বাংলা ইনিশিয়েটর

অস্ট্রেলিয়া সিরিজকে সামনে রেখে ঘাম ঝড়ানো প্রস্তুতিতে ব্যাস্ত জাতীয় দলের টাইগাররা। ঢাকা পর্ব শেষ করে ২য় টেস্ট ভেন্যু চট্টগ্রামে প্রস্তুতি নিতে যায় মুশফিক-তামিমরা। নিজেদের মধ্য দুদলে ভাগ হয়ে তিনদিনের প্রস্তুতি ম্যাচও খেলে টিম বাংলাদেশ।

তবে ম্যাচের শেষদিন অর্থাৎ কালকের দিনটি নষ্ট হয় বৃষ্টির কারনে। তবে গত দুদিন বৃষ্টির বাধা কিছুটা থাকলেও যতটুকু খেলা হয়েছে তাতে বোলারদেরই ছিল রাজত্ব। দুদিনে ১৯ উইকেট নিয়েছেন শফিউল-রুবেলরা। তবে ব্যাটসম্যান জন্য সময়টা ছিলো হতাশাজনক। সর্বোমোট ৪২৩ রানই করেছেন মমিনুল-নাসিররা।

শুরুটা ভাল করলেও বেশি সময় ক্রিজে থাকতে পারেননি সাব্বির রহমানও। একসময় টি২o স্পেশালিষ্ট এর ট্যাগ লেগে ছিলো এই আক্রমনাত্নক ব্যাটসম্যানের গায়ে। ফলে টেষ্ট অভিষেকের জন্য অপেক্ষাও করতে হয়েছে অনেকদিন। অভিষেকের পরেও ভাল কিছু করে দেখাতে পারেননি সাব্বির।

তিন বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে এখনো সেঞ্চুরির দেখা পাননি এই হার্ডহিটার ব্যাটসম্যান। ভুল শর্ট সিলেকশন আর অযথা আক্রমনাত্নক হবার মূল্য দিতে হয়েছে অনেক বার। তাই এবারের প্রস্তুতিতে এই দিকটি নিয়ে বেশি কাজ করেছেন সাব্বির। তিনি বলেন, “সব সময় আক্রমণ করা যাবে না। পরিস্থিতি অনুযায়ী আক্রমণ করতে হবে। গিয়েই আক্রমণাত্মক হলে হবে না। বুঝতে হবে উইকেট কেমন, প্রতিপক্ষের বোলারের পরিকল্পনা কেমন সবকিছু বুঝেই খেলতে হবে। যেহেতু আমি আক্রমণাত্মক ব্যাটসম্যান, যেভাবে আগে খেলে আসছি, সেভাবে খেলব।”

নতুন ব্যাটিং উপদেষ্টা মার্ক ওনিলের কাছ থেকে পরামর্শও গ্রহন করেন তিনি। যে বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করেছেন- “ব্যাসিক্যালি ব্যাক লিফট নিয়ে কাজ করছি। থ্রো ডাউন নিয়ে কাজ করছি। এটা আসলে বড় ব্যাপার। কীভাবে সামনের বল ছাড়তে হয়, কীভাববে পেছনের বল ছাড়তে হয়, সেটা নিয়েও কাজ করছি।”

সুযোগ পেলে ধৈর্য ধরে একটা বড় ইনিংস খেলার চেষ্টা করবেন ইচ্ছা সাব্বিরের। তিনি টেষ্টে সাধারনত শেষেরদিকে ব্যাটিংয়ে আসেন। শেষবার চারে, কখনো পাঁচ কিংবা ছয়েও খেলেছেন। তবে এই বিষয় নিয়ে তেমন মাথা ব্যাথা নেই সাব্বিরের। দলের প্রয়োজনে যেকোন পজিশনেই ভাল কিছু করে দেখাতে চান সাব্বির।

এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা। আগামি ২৭ আগস্ট থেকে ঢাকায় শুরু হবে অস্ট্রেলিয়ার সাথে প্রথম টেষ্ট। তখনই বোঝা যাবে প্রস্তুতিটা কতটা কাজে লাগাতে পারল সাব্বির-মুশিরা।

>
বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।