প্রচ্ছদ » মুক্তমঞ্চ » আমার কথা » সব কিছুর দোষ কী শুধু সরকারের একার?

সব কিছুর দোষ কী শুধু সরকারের একার?

 নিশাত তনিকা


কিছুদিন আগে লেগুনায় উঠে দেখলাম সিটি কর্পোরেশন এর একজন মহিলা কর্মী বসে আছেন। ৬০ফিট নামক মিরপুর ২ এর নতুন রাস্তাটি ঝাড়ু দেওয়া শেষ করে উঠেছেন হয়তো। আমি তার পাশে বসলাম। লেগুনা ছাড়ার কিছুক্ষণ এর মধ্যেই ৫মিনিট এর রাস্তায় মহিলাটি ২ বার পানের পিক ফেললেন।

আমি তাকে ক্ষীণ স্বরে ডেকে বললাম, “আন্টি রাস্তাটা মাত্র ঝাড়ু দিলেন আপনি নিজেই। আপনিই আবার নোংরা করলেন। লাভ কী হলো বলুন তো?”
মহিলাটি কিছু সেকেন্ডের জন্য আমার দিকে তাকিয়ে থেকে মাথা নীচু করে ফেললেন।

গতকাল রিক্সা করে বাসায় ফেরার সময় জ্যামে আটকে আছি প্রায় ১০মিনিট এর বেশি। বিরক্ত হয়ে পাশের রিক্সা থেকে সামনের গাড়িগুলোকে সজোড়ে একটি বিচ্ছিরি গালি দিলেন ইন করে শার্ট, টাই পরা একজন ভদ্রলোক। লুঙ্গী পরা, গায়ে নোংরা একটা শার্ট যা কিনা ঘেমে ভিজে আরো নোংরা হয়ে গেছে তার সেই রিক্সাচালক তাকে বললেন, “মামা এম্নে গালি দিয়েন না।” উনি আরো জোরে রিক্সাচালককে আরেকটা গালি দিয়ে বললেন, “Uncultured যত্তসব”

রাস্তাঘাটে চলাফেরা করার সময় আমাদের চোখে অনেক ব্যাপার ধরা পরে। যার কিছু কিছু আমাদের মুগ্ধ করে আবার কিছু কিছু আমাদের মাঝে বিরক্তির বা খারাপ লাগার জন্ম দেয়। নিজেদের কাছে “Graduated from ‘অমুক বিশ্ববিদ্যালয়’ ” নামক একটা সার্টিফিকেট জমা রেখে দিয়েই আমরা নিজেকে শিক্ষিত মানুষ বলে পরিচয় দেই। নিজেকে “Cultured” বা ” Responsible Citizen” বলে বসি।

আসলেই কি তাই? প্রতিদিন যত রকম ময়লা ফেলে আমরা রাস্তা নষ্ট এবং নোংরা করে ফেলি তা যদি প্রতিরোধ করা যেতো তবে বাংলাদেশ বিশ্বের সবচেয়ে পরিচ্ছন্ন দেশ হয়ে যেতো। রাস্তায় ফেলা ময়লা দেখে আপনি যে থুথু ফেললেন,সেটাও কিন্তু ময়লা।

বেশিরভাগ সময় এসব নোংরা আবর্জনা দেখে আমরা গালি দেই সরকারকে। সত্যি করে বলুন তো, ৩ দিন আগে পরিষ্কার করা ড্রেনটিতে যে আপনি চিপসের প্যাকেট ফেলে দিলেন এবং ৩ঘন্টা পরে বৃষ্টিতে যে রাস্তার পানি ড্রেন দিয়ে যেতে না পেরে একটা বিচ্ছিরি নদীর সৃষ্টি করলো,সেই দোষটা কি সরকারের?

ময়লা আবর্জনা যেখানে সেখানে ফেলা, প্রতিরোধের জন্য রাস্তায় রাস্তায় ডাস্টবিন লাগানো হলো। মাত্র দশ সেকেন্ড কষ্ট করে হাঁটলেই ডাস্টবিন পাওয়া যায় হয়তো, তবুও ময়লা আমরা রাস্তাতেই ফেলে দেই।

“With great power comes great responsibility” বাক্যটির সাথে কম হোক বেশি হোক সবাই পরিচিত। কিন্তু বাক্যটির গুরুত্ব কতজন উপলব্ধি করতে সে ব্যাপারে আমার যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে। এক্ষেত্রে যদি “Great Power তো সরকারের”, এই কথা বলেন তবে আমি প্রশ্ন করবো, “সকল ক্ষমতার উৎস জনগণ” লেখাটা কোথাও পড়েন নি? আমি তো সেই কেজি ক্লাস থেকে পড়ে আসছি এই বাক্যটি।

আমরা আমাদের নিজেদের ব্যাপারে,দেশের ব্যাপারে এতটা অসচেতন যে, সিটি কর্পোরেশন এর যেই মহিলা ভোরবেলা রাস্তাটি পরিষ্কার করলেন, তিনি নিজেই ১ ঘন্টা পরে রাস্তায় ময়লা ফেললেন।

আমি অনেকটা নিশ্চিত যে, লেখাটি পড়া শুরু করার সময় আমি সিটি কর্পোরেশন এর ওই মহিলাটিকে মনে মনে “যত্তসব”, “বিরক্তিকর”, “এরাই নাকি পরিচ্ছন্নতা কর্মী। রক্ষকই হলো ভক্ষক” বলছিলেন। একটু ঠান্ডা মাথায় ভেবে দেখুন তো,দেশ পরিচ্ছন্ন রাখা কি প্রতিটা সাধারণ মানুষের দায়িত্ব হওয়া উচিত না? কেনো আপনার ফেলে দেওয়া খাবারের প্যাকেট, ময়লা টিস্যু আরেকজন মানুষ তুলবে?

পৃথিবীতে এমন কোনো মানুষ নেই যার নিজের, পরিবার বা সমাজের উপর দায়িত্ব নেই। বন্যায় প্লাবিত হয়ে সর্বহারা মানুষটিরও নিজের উপর দায়িত্ব থেকেই যায়, থেকে যায় তার দেশের উপর দায়িত্ব। আমাদের দায়িত্ব শুধু দেশকে পরিষ্কার রাখা নয়। দেশের উন্নতির জন্য সরকারের নেওয়া প্রতিটি পদক্ষেপে আমাদেরও দায়িত্ব রয়েছে।

উল্টো রাস্তায় গাড়ি না চালানো,যখন তখন দরকার ছাড়া হর্ণ না বাজানো, ট্রাফিক আইন মেনে চলা, গাছ কাটা রোধ করা, রাস্তার মাঝে দোকানপাট না দেওয়া, ফুটপাত এবং ওভারব্রিজ ব্যবহার করা সবই একজন সাধারণ নাগরিকের অসাধারণ কাজ।

>
বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।