প্রচ্ছদ » আমাদের সাহিত্য » বই পরিচয়ঃ দ্য দা ভিঞ্চি কোড

বই পরিচয়ঃ দ্য দা ভিঞ্চি কোড

প্রকাশ : ৭ নভেম্বর ২০১৭৯:৫৯:৩০ অপরাহ্ন

খাতুনে জান্নাত | বাংলা ইনিশিয়েটর

বইয়ের নামঃ দ্য দা ভিঞ্চি কোড
লেখকঃ ড্যান ব্রাউন
বাংলা অনুবাদকঃ মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন
বাংলা অনুবাদ প্রকাশনীঃ বাতিঘর
প্রথম প্রকাশঃ আগষ্ট ২০০৫
মূল্যঃ তিনশত টাকা (বইয়ের ওপর মুদ্রিত)
পৃষ্ঠাঃ ৪৪৮

থ্রিলার বই যারা পছন্দ করেন, তাদের জন্য বইয়ের দুনিয়ায় ‘দ্য দা ভিঞ্চি কোড’ পছন্দের প্রথম দিকেই থাকার কথা। দূর্দান্ত অ্যাডভেঞ্চার, অদ্ভুত ঘটনা আর ঘটনার নতুন নতুন বাঁক বইটিকে করে তুলেছে অনবদ্য।

গল্পের শুরুতেই জ্যাক সনিয়ে নামে এক স্বনামধন্য কিউরেটর কোনো এক আততায়ীর হাতে খুন হয়। খুব স্বাভাবিকভাবেই সেখানে পুলিশ আসে। তবে পুলিশ ভড়কে যায় তার মৃতদেহ দেখে। কারণ, জ্যাক সনিয়ে শুধু খুন হয়েছেন তা নয়, সে মৃত্যুর আগে যতটুকু সময় পেয়েছেন তার মধ্যে লিখে রেখে গিয়েছেন বিভিন্ন তথ্য, যার অর্থ বোঝা পুলিশের জন্য হয়ে গিয়েছে দুষ্কর! কী লিখেছেন তিনি, আর কাকেই বা লিখেছেন? এই তথ্য জানার জন্য পুলিশ প্রতীকবিদ্যায় পারদর্শী হার্ভাড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক রবার্ট ল্যাংডনের দ্বারস্থ হয়।

পুলিশ আর ল্যাংডন যখন জ্যাক সনিয়ের হত্যার তদন্ত করছিলো তখন সেখানে উপস্থিত হয় ক্রিপ্টোগ্রাফার সোফি নেভু। সে এসে দাবী করে জ্যাক সনিয়ে কী বলতে চেয়েছেন তার অর্থোদ্ধার সে করেছেন। কিন্তু তদন্তকারী পুলিশ ক্যাপ্টেন বেজু ফশের কাছে সোফি নেভুর কথা বিশ্বাসযোগ্য মনে হয় না। তার ওপর সোফি নেভু কৌশলে রবার্ট ল্যাংডনের সাথে আলাদা কথা বলে তাকে জানায় যে পুলিশ মোটেও তাকে একজন প্রতীক বোদ্ধা হিসেবে আনে নি, এনেছে অ্যারেস্ট করতে! কারণ তাকে পুলিশ সন্দেহ করছে!

এরপর সোফি নেভু আর রবার্ট ল্যাংডন পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে পালিয়ে যায়। শুরু হয় এক দূর্দান্ত অ্যাডভেঞ্চার। ধীরে ধীরে তারা জানতে পারে এমন এক সিক্রেট, যা পৃথিবীর গুটিকয়েক মানুষ জানে। আর মিলিয়ন মিলিয়ন মানুষ অজ্ঞাত সেই সিক্রেট সম্পর্কে। যা জানলে বদলে যেতে পারে পুরো পৃথিবীর ইতিহাস। কিন্তু কী সেই সিক্রেট? রবার্ট ল্যাংডনকেই বা কেন পুলিশ সন্দেহ করলো খুনি হিসেবে? আর সোফি নেভুই বা কেন নিজেকে এসবের সঙ্গে জড়ালো? জানতে হলে পড়তে হবে দূর্দান্ত অ্যাডভেঞ্চার-থ্রিলারের এই বইটি।

দ্য দা ভিঞ্চি কোড বইটি বাংলাসহ অনুবাদ হয়েছে আরও ৪১ টি ভাষায়, বিক্রি হয়েছে ৮০ মিলিয়ন কপিরও বেশি। দ্য ডেনভার পোস্ট বইটি সম্পর্কে লিখেছে, “থ্রিলার উপন্যাস এর চেয়ে ভালো হতে পারে না”। বইটির প্রতি পৃষ্ঠার নতুন নতুন রহস্য পাঠককে নিয়ে যাবে একদম শেষ পৃষ্ঠা পর্যন্ত। তাই থ্রিলারপ্রমীদের জন্য এটি হতে পারে একটি দূর্দান্ত খোরাক!

বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।