প্রচ্ছদ » খেলাধুলা » মুশফিকের পর মাহমুদউল্লাহর ঝড় : জয় পেল খুলনা

মুশফিকের পর মাহমুদউল্লাহর ঝড় : জয় পেল খুলনা

প্রকাশ : ২১ নভেম্বর ২০১৭৬:০৭:৪৮ অপরাহ্ন

সাব্বির রায়হান অপি | বাংলা ইনিশিয়েটর

বিপিএলের এবারের আসরের শুরু থেকে বিদেশিরা ঝড় তুললেও বাংলাদেশের টাইগার গর্জন তেমন দেখা যাচ্ছিল না। ঢাকা পর্বের শুরু থেকেই একে একে রানে ফিরেছেন সাব্বির, মমিনুল, কায়েসসহ টাইগার ব্যাটসম্যানরা। আজ শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের অন্যতম ব্যাটিং ভরসা মুশফিকের পরে মাহমুদউল্লাহর গর্জনও দেখেছে ক্রিকেট ভক্তরা।

ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুকেই বিপদে পরে রাজশাহী কিংস। আক্রমনটা শুরু করেন জুনায়েদ খান শেষ করেন আবু জায়েদ। মমিনুলকে ৫ রানে শান্তর ক্যাচ বানিয়ে ফেরত পাঠানোর পর বেল-ড্রুম্মন্ডকে শূন্য রানে বোল্ড করেন জুনায়েদ খান। পরের ওভারেই জাকির হাসানকেও শূন্য রানে ফেরান আবু জায়েদ। পরপর তিন উইকেট পরে যাওয়ায় ধুকতে থাকে পদ্মা পারের দলটি। এরপর স্মিথের সাথে মুসফিকের জুটিতে উঠে দাড়ায় রাজশাহী। দলের সংগ্রহকে ৯৭ রানে পৌছে দিয়ে ১১ তম ওভারে আফিফ হাসানের বলে শান্তকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন স্মিথ। তার আগে ৭ বাউন্ডারি ও ৪ ওভার-বাউন্ডারিতে ৩৬ বলে ৬২ রানের ভায়ানক ইনিংস খেলেছেন এই ক্যারিবিয়ান। স্মিথের বিদায়ের পর ফ্রাঙ্কলিনকে নিয়ে ঝড় তুলতে থাকেন মুশফিক। ৪ চার ও ৩ ছক্কায় ৩৩ বলে ৫৫ রান করে ১৬ তম ওভারে আবু জায়েদের বলে আরিফুল হককে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন মুশফিক। দলের সংগ্রহ তখন ছিল ১৪১। বাকি সময়টুকুতে ৩ উইকেট হারিয়ে মাত্র ২১ রানই যোগ করতে পেরেছে কিংসরা।খুলনার হয়ে জুনায়েদ নিয়েছেন ৪ ও আবু জায়েদ নিয়েছেন ২ উইকেট।

১৬৭ রানের রানের লক্ষে ব্যাট করতে নেমে খুলনার শুরুটাও খুল ভাল হয়নি। শেষ ওভার পর্যন্ত উত্তেজনাময় ম্যাচের ফলটা আগে থেকে অনুমান করাটাও কঠিন ছিল। নিজের ১ম ওভারে ওয়ালটন এবং ২য় ওভারে প্রাসান্নার উইকেট তুলে নেন মোহাম্মদ স্বামি। এরপর মাহমুদউল্লাহ ও রুশোর জুটিতে ভরসা করলেও ৬৭ রানের বেশি যোগ করতে পারেনি এই জুটি। ব্রেথওয়াইটকে আবার শুরু করলেও ঝড়টা দ্রুতই থেমে গেছে। তবে হাসান আলির বলে বোল্ড হবার আগে ৮ চার ও ১ ছক্কায় ৪৪ বলে ৫৬ রানের অসাধারন ইনিংস খেলেছেন রিয়াদ। আফিফ ও শান্তর ব্যার্থ ইনিংসের পর ম্যাচটি যখন টাইটানসের হাত থেকে বেড়িয়ে যাচ্ছিল তখনই একাই যেন জয় তুলে নিল আরিফুল হক। নামের পাশে ১৯ বলে ৪৩ রান দেখলেই তা বোঝা যায়। ৪ চার ও ২ ছক্কার ইনিংস দিয়ে খুলনা ভক্তদের জয় উপহার দিয়েছে এই তরুন। স্বামির ৩ ও ফ্রাঙ্কলিনের ২ উইকেটের দারুন পারফর্মেন্সও থামাতে পারেনি টাইটানসদের।

৭ ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে খুলনা টাইটানসের অবস্থান তৃতীয় এবং সমান ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে ষষ্ঠ দল রাজশাহী কিংস।

বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।