প্রচ্ছদ » অনিয়ম » শব্দদূষণময় নগরীতে অতিষ্ট নাগরিক

শব্দদূষণময় নগরীতে অতিষ্ট নাগরিক

প্রকাশ : ১ ফেব্রুয়ারী ২০১৮৯:৪৪:০০ অপরাহ্ন

খাতুনে জান্নাত | বাংলা ইনিশিয়েটর

বাড়ি তৈরির সময় ইট ভাঙ্গার এই মেশিন থেকে নির্গত হয় অসহনীয় শব্দ

রাজধানী ঢাকা পরিবেশ দূষণের প্রতিটি ক্ষেত্রেই কোনো না কোনোভাবে এগিয়ে থাকলেও বর্তমানে নাগরিকগণের জন্য একটি প্রধান সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে শব্দদূষণ। এবং এই দূষণ সৃষ্টি হচ্ছে নাগরিক অসচেতনতার কারণেই।

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় বর্তমানে প্রায় দেড় কোটি লোক বসবাস করে। পৃথিবীর সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ দেশের সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা এই ঢাকা। তাই এখানে দেশের অনান্য স্থানের তুলনায় দূষণের মাত্রা বেশি। নাগরিক সচেতনতার হারও খুব কম, তাই দূষণ কমার কোনো লক্ষণ নেই। শব্দদূষণও যার মধ্যে একটি।

বর্তমানে রাজধানীতে একটির পর একটি নতুন বাড়ি তৈরি হওয়ায় সেখানকার কাজের প্রক্রিয়া হিসেবে প্রচুর শব্দ হয়। ইট ভাঙ্গা থেকে শুরু করে বাড়ি তৈরি করার সমস্তটা সময়ই এর চারপাশ প্রচন্ড শব্দে প্রকম্পিত হতে থাকে। আশেপাশের বাড়ির লোকজন অতিষ্ট হয়ে ওঠে সেসব শব্দে। মিরপুর ১৪ এর একজন বাসিন্দাকে এই সম্পর্কে জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন, “আমাদের বাসার সামনেই আরেকটি বাড়ি তৈরি হচ্ছে। প্রচন্ড শব্দে দিনের বেলা ঘরে থাকা যায় না, মাথা ব্যাথা শুরু হয়ে যায়। ফোনে কথাও বলতে পারি না ইটভাঙ্গার শব্দের কারণে। তার ওপর ধোঁয়া তো আছেই। সবচেয়ে বিরক্তিকর ব্যাপার একটার পর একটা বাড়ি আশেপাশে তৈরি হয়, তাই আমাদের এই শব্দ থেকে মুক্তিও মেলে না!”

শুধু বাড়ি তৈরির শব্দই নয়, নানা কারণে এই শহরে দূষিত হচ্ছে শব্দ। এরমধ্যে যানবাহনের হর্ন, অতিরিক্ত ভলিউমে কোনো অনুষ্ঠানে গান বাজানোটাই বর্তমানে বেশি হচ্ছে।

যানবাহনের হর্ন যেসব স্থানে দেয়া নিষিদ্ধ, সেসব স্থানেও দেখা যায় বিকট শব্দে হর্ন বাজাতে বাজাতে ছুটে চলেছে গাড়ি। বিভিন্ন হাসপাতাল, স্কুল এর সাক্ষী। যদিও সেসব স্থানের সামনে হর্ন বাজানো পুরোপুরি নিষিদ্ধ। আর যানজটে পড়লে সব গাড়ি একসঙ্গে হর্ন বাজানো শুরু করে, ফলে এই ভয়ানক শব্দের মধ্যে থাকতে থাকতে যাত্রীদের অবস্থা হয়ে ওঠে করুণ!

আর কোনো অনুষ্ঠানে গান বাজানোর ব্যাপারটাতো শহরে চলেই আসছে বহুদিন ধরে! যদিও এটা কোনো নাগরিক অধিকারের মধ্যে পড়ে না, তবুও মানুষ এটাকে তার অধিকার হিসেবে ধরে নিয়েছে। আর তাই কোনো বাড়িতে কোনো উৎসব আয়োজিত হলে তাদের পাশাপাশি তাদের আশেপাশের বাড়ির বাসিন্দাদেরও জেগে থাকতে হয়, তবে সম্পূর্ণ ভিন্ন কারণে!

শব্দদূষণের কারণে ঢাকা এখনো বাসের অযোগ্য নগরী হয়ে যায় নি। তবে ঢাকার বাসিন্দারা যে এই শব্দদূষণের কারণে বিরাট স্বাস্থ্যঝু্ঁকির মধ্যে আছেন, সে ব্যাপারে গবেষকগণ একদম নিশ্চিত। কিন্তু ঢাকাবাসীর মধ্যে নেই সচেতনতার বিন্দুমাত্র আভাস।

বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।