প্রচ্ছদ » খেলাধুলা » শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে জয় মুম্বাইয়ের : বিপাকে পাঞ্জাব!

শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে জয় মুম্বাইয়ের : বিপাকে পাঞ্জাব!

প্রকাশ : ১৭ মে ২০১৮১:৩৪:৩২ পূর্বাহ্ন

সাব্বির রায়হান অপি | বাংলা ইনিশিয়েটর

টুর্নামেন্টের শুরু থেকে একের পর এক অসাধারন পারফর্মেন্সে টেবিলের উপরের দিকেই ছিল পাঞ্জাব। কিন্তু শেষ কয়েকটা ম্যাচে টানা হার তাদের ফেলেছে বিপাকে। প্লে-অফ খেলাটা এখন অনেকটাই কঠিন পাঞ্জাবের জন্য। অন্যদিকে একসময়ে টেবিলের তলানিতে থাকা মুম্বাই, ঘুরে দাড়িয়েছে। একের পর এক টানা জয়ে প্লে-অফ খেলার পথে দলটি।

টসে মুম্বাইকে ব্যাটিং আমন্ত্রন জানান পাঞ্জাব অধিনায়ক রবিচন্দন আশ্বিন। শুরুটা আক্রমনাত্মক করে লুইস-সুরিয়াকুমার। আঙ্কিত রাজপুতের করা তৃতীয় ওভারে ২১ রান তোলার পরের ওভারে প্রথম বলেই ফেরন এভিন লুইস। এন্ড্রু তায়ের স্লোয়ার বলে বোল্ড হন ৯ রান করে। পরের ওভারে আক্রমনাত্মক হম ইশান কিশান। তিনিও ফিরেছেন ঠিক তার পরের ওভারে সেই এন্ড্রু তায়ের বলে স্টোয়নিসকে ক্যাচ দিয়ে। ১২ বলে ২০ করে ইশান ফিরলে পরের বলেই ফেরেন সুরিয়াকুমার যাদব। অফ স্টাম্পের বাইরে শর্ট বলে এজ হয়ে লোকেশ রাহুলের তালুবন্ধি হন তিনি।

নবম ওভারের আঙ্কিত রাজপুতের শর্ট বলটি মিড উইকেট দিয়ে মিড অনে যুবরাজ সিংয়ের হাতে ধরা পরেন ৬ রান করা রহিত শর্মা। একাদশে সুযোগ পাওয়া কাইরন পোলার্ড এদিন জ্বলে ওঠেন। ক্রুনাল পান্ডিয়ার সাথে দায়িত্বশীল ইনিংস খেলেন। দুজনের জুটিতেই স্বস্থি পায় মুম্বাই ইন্ডিয়ানস। দলীয় ১৩৬ রানে ফেরেন ক্রুনাল পান্ডিয়া। স্টোয়নিসের স্লোয়ার বলে ব্যাট লাগাতে গিয়ে শর্ট ফাইন লেগে থাকা আঙ্কিত রাজপুতকে সহজ ক্যাচ দেন ২৩ বলে ৩২ রান করে।

 

অন্যদিকে আক্রমনাত্মক ব্যাটিং করে অর্ধশতক তুলে নেন কাইরন পোলার্ড। আশ্বিনের কৃপন বোলিংয়ের ফাঁদে পরে উইকেট হারান এই ক্যারিবিয়ান। ৫ চার ও ৩ ছয়ে ২৩ বলে ৫০ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলে লং অনে ফিঞ্চকে ক্যাচ দেন পোলার্ড। এরপর আশ্বিন বেন কাটিংকে ফেরান আক্সারের ক্যাচ বানিয়ে। হার্দিক পান্ডিয়াকে আশ্বিনের ক্যাচ বানিয়ে নিজের চতুর্থ উইকেট তুলে নেন এন্ড্রু তায়।

১৮৭ রানের বিশাল রান তাড়া করতে নেমে দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন লোকেশ রাহুল। শতক করতে ৬ রানের আক্ষেপটাও থেকে যাবে এই ভারতীয়র। জয়ের কাছে গিয়ে তা না পাওয়ার আক্ষেপটাও থাকবে পাঞ্জাবের। ধীর শুরু করেও দ্রুত ফিরেছেন গেইল। ম্যাকলেনাগানের শর্ট পিচ বলে কাটিংকে ক্যাচ দেন ১১ বলে ১৮ রান করে। এরপর লোকেশ রাহুলের সাথে অসাধারন জুটি গড়েন অ্যারন ফিঞ্চ। দুজনের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে পাঞ্জাবের জয় যখন সময়ের ব্যাপার মনে হচ্ছিল, ঠিক তখনই জোড়া আক্রমন জাসপ্রিত বুমরাহ। অর্ধশতক থেকে ৪ রান দূরে থাকা ফিঞ্চ ফেরেন গুড লেংথ বলে স্লগ সুইপ করতে গিয়ে হার্দিকের তালুবন্ধি হয়ে। ৩৫ বলে ৪৬ রানের ইনিংসে ৩টি চার ও ১টি ছয়ের মার রয়েছে।

একি ওভারের পঞ্চম বলে ১ রান করা স্টোয়নিসকে উইকেটের পেছনে ইশানের তালুবন্ধি করে ফেরান বুমরাহ। জয় সামনে রেখে ১৯তম ওভারের তৃতীয় বলে ফেরেন রাহুল। ৬০ বলে ১০ চার ও ৩ ছয়ে ৯৪ রান করে বুমরাহর বলে কাটিংকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন এই ব্যাটসম্যান। শেষ ওভারে ১৭ রানের সমীকরন মেলাতে ব্যার্থ যুবরাজ সিং ও আক্সার পাটেলরা। ৩ রানের শ্বাসরুদ্ধকর জয় নিয়ে প্লে-অফ খেলার স্বপ্ন দেখতেই পারে মুম্বাই। আর পাঞ্জাবের স্বপ্ন প্রায় শেষ হয়ে যাওয়ার পথে।

পরের ম্যাচে বেঙ্গলুরুতে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের মুখোমুখি হবে রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গলুরু।

বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।