শিরোনাম
প্রচ্ছদ » খেলাধুলা » প্লে-অফ নিশ্চিত করা চেন্নাইকে এবার হারালো টেবিলের তলানিতে থাকা দিল্লি!

প্লে-অফ নিশ্চিত করা চেন্নাইকে এবার হারালো টেবিলের তলানিতে থাকা দিল্লি!

প্রকাশ : ১৯ মে ২০১৮১:২৮:৪৭ পূর্বাহ্ন

সাব্বির রায়হান অপি | বাংলা ইনিশিয়েটর

গত ম্যাচে প্লে-অফ নিশ্চিত করা হায়দ্রাবাদকে হারিয়েছে ব্যাঙ্গলুরু। আজ প্লে-অফ নিশ্চিত করা আরেক দল চেন্নাইকে হারালো দিল্লি। প্লে-অফে নিজেদের নাম চুরান্ত হবার পরেই দলগুলো নিজেদের হারিয়ে ফেলার কারন খুঁজে পাওয়া না গেলেও তার সুবিধা ভালোভাবেই নিচ্ছে তলানিতে থাকা দলগুলো। প্লে-অফ খেলার দৌড়ে গতকাল অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছে ব্যাঙ্গলুরু। টুর্নামেন্টে টিকে থাকার সম্ভাবনা না থাকলে ভক্তদের মুখে হাসি ফুটিয়েছে দিল্লি ডেয়ারডেভিলস।

টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন চেন্নাইয়ের ‘ক্যাপ্টেন কুল’ মাহেন্দ্র সিং ধোনি। ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয়ে ২৪ রানেই ফিরে যান পৃথিবী শো। ১৭ বলে ১৭ রান করে দিপাক চাহারের বলে শারদুল ঠাকুরকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন এই তরুন ব্যাটসম্যান। একপর শ্রেয়াস ও রিসাব সতর্ক ব্যাটিং করলেও হারভজনের ১০ম ওভারে ১৭ রান তোলেন রিসাব পান্ত। ঠিক তার পরের ওভারেই জোড়া আক্রমন করেন লুঙ্গি নিগিধি। তৃতীয় বলে ২২ বলে ১৯ রান করা শ্রেয়াসের উইকেট ভেঙ্গে দেন লুঙ্গি নিগিধি। আর অফ স্টাম্পে গুড লেংথে করা শেষ বলে এজ হয়ে ডুয়াইন ব্রাভোর হাতে তালুবন্ধি হন ২৬ বলে ৩৮ রান করা রিসাব পান্ত।

পুরো টুর্নামেন্টের মত আজও ব্যার্থ ছিলেন ম্যাক্সওয়েল। লেগ স্টাম্পে করা জাদেজার গুড লেংথ বলটিকে রিভার্স সুইপ করতে গিয়ে বোল্ড হন এই অজি ব্যাটসম্যান। পরের ওভারে আভিষেক শর্মা ফেরেন শারদুল ঠাকুরের বলে হারভজন সিংকে ক্যাচ দিয়ে। শেষ সময়ে বিজয় শংকর ও হার্সাল পাটেলের ক্যামিও জুটিতে ৫ উইকেটে ১৬২ রানের সংগ্রহ পায় দিল্লি ডেয়ারডেভিলস। ২টি করে চার-ছক্কায় ২৮ বলে অপরাজিত ৩৬ রান করেন বিজয় শংকর। অন্যদিকে ১৬ বলে ১টি চার ও ৪টি ছয়ে ৩৬ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন হার্সাল পাটেল।

১৬৩ রান তাড়া করতে নেমে ভালো শুরু করেছিলেন ওয়াটসন ও রায়ডুর উদ্বোধনি জুটি। কিন্তু সপ্তম ওভারেই ফেরেন ওয়াটসন। অমিত মিশ্রার বলে লং অফে ট্রেন্ট বোল্টকে ক্যাচ দেন ২৩ বলে ১৪ রান করে। অন্যপ্রান্তে ঝড়ো ইনিংস খেলেছেন রায়ডু। ৪টি করে চার-ছক্কায় গড়া ২৯ বলে ৫০ রানের ইনিংসের সমাপ্তি হার্সাল পাটেলের ১০ম ওভারে ম্যাক্সওয়েলের দুর্দান্ত ক্যাচ দিয়ে। দলের প্রয়োজনে জ্বলে উঠতে পারেননি সুরেশ রাইনা। ১৪তম ওভারের প্রথম বলে নেপালের সন্দিপ লামিচানের বলে বিজয় শংকরকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ১৮ বলে ১৫ রান করা রাইনা।

পরের ওভারে ১ রান করা স্যাম ব্লিংসকে আভিষেক শর্মার ক্যাচ বানান অমিত মিশ্রা। ধোনি তার ‘ক্লাসিক্যাল ফিনিশিং’ দিতে ব্যার্থ ছিলেন আজ। ২৩ বলে মাত্র ১৭ রান করে ট্রেন্ট বোল্টের বলে শ্রেয়াসকে ক্যাচ দেন মাহি। ২ ওভারে ৫০ রানের প্রয়োজন ছিলো। রবিন্দ্র জাদেজা ও ডুয়াইন ব্রাভো। আইপিএলে এমন অনেক নাটকীয়তা দেখেছে ক্রিকেট বিশ্ব। শুরুটা ছয় দিয়েই করেছিল জাদেজা। কিন্তু আজ তা হলো না। ১৯তম ওভারে ১১ রানই করতে পারলেন এই দুই ব্যাটসম্যান।

ডুয়াইন ব্রাভো মাত্র ১ রান করে ট্রেন্ট বোল্টের বলে ভুল টাইমিংয়ের কারনে বিজয় শংকরের তালুবন্ধি হন। অন্যপ্রান্তে ১৮ বলে ২৭ রান করে অপরাজিত রবিন্দ্র জাদেজা। টুর্নামেন্টের শেষ দিকে ৩৪ রানের অসাধারন জয় পায় দিল্লি ডেয়ারডেভিলস। ব্যাট ও বল হাতে দুর্দান্ত হার্সাল পাটেল হন ম্যাচ সেরা।

কাল জয়পুরে প্লে-অফ নিশ্চিতের লড়াইয়ে নামবে রাজস্থান রয়েলস ও রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গলুরু।

বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।