শিরোনাম
প্রচ্ছদ » খেলাধুলা » শেষ ম্যাচে দিল্লির জয় : প্লে-অফ খেলা হলো না মুম্বাইয়ের!

শেষ ম্যাচে দিল্লির জয় : প্লে-অফ খেলা হলো না মুম্বাইয়ের!

প্রকাশ : ২০ মে ২০১৮১০:৪৬:২৯ অপরাহ্ন

সাব্বির রায়হান অপি | বাংলা ইনিশিয়েটর

প্লে-অফ, হারলে বিদায়। এমন কঠিন সমীকরণ জয়ের আশায় মাঠে নেমেছিল মুম্বাই ইন্ডিয়ানস। তবে সমীকরণ জয়ে ব্যার্থ মুস্তাফিজের দল। টুর্নামেন্টের শুরুটা বাজে হলেও, নতুন অধিনায়ক শ্রেয়াস আইয়ারের হাত ধরে ভালো কিছু ম্যাচ ভক্তদের উপহার দিয়েছে দিল্লি। প্লে-অফের স্বপ্ন অনেক আগেই ভেঙ্গে গেছে দলটির। তবে শেষ ভালো যার, সব ভালো তার। টুর্নামেন্টে নিজেদের শেষ ম্যাচে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন মুম্বাইকে হারিয়ে ভক্তদের মুখে একটু হলেও হাসি ফুঁটিয়েছে দিল্লি ডেয়ারডেভিলস।

টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন শ্রেয়াস আইয়ার। দলে জেসন রয়, কলিন মুনরোর মত উদ্বোধনি ব্যাটসম্যান থাকতেও পৃথিবীর সাথে ওপেনিংয়ে নামেন বাজে ফর্মে থাকে ম্যাক্সওয়েল। শুরুটাও তাই খুব একটা ভালো হয়নি দিল্লির। দলীয় ৩০ রান পৃথিবী ফেরেন রান আউট হয়ে। ১২ রান করে পৃথিবী ফিরলে পরের ওভারেই বুমরাহর বলে বোল্ড হন ১৮ বলে ২২ রান করা ম্যাক্সওয়েল। অধিনায়ক শ্রেয়াস আইয়ার শিকার হন মারকান্দের। ৬ রান করে মারকান্দের বলে ক্রুনাল পান্ডিয়ার তালুবন্ধি হন তিনি।

এরপর বিজয় শংকরকে নিয়ে চার-ছক্কার ঝড় তোলেন রিসাব পান্ত। ৪৪ বলে ৪টি করে চার-ছক্কায় তার ৬৪ রানেই বড় সংগ্রহের পথে হাঁটে দিল্লি। ১৭তম ওভারে ক্রুনাল পান্ডিয়ার বলে পোলার্ডকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন এই উইকেট-রক্ষক ব্যাটসম্যান। অন্যপ্রান্তে ৩০ বলে ৩টি চার ও ২টি ছয়ে ৪৩ রান করে অপরাজিত ছিলেন বিজয় শংকর। শেষ সময়ে আভিষেক শর্মা ১০ বলে ১৫ রান করলে ৪ উইকেটের বিনিময়ে ১৭৪ রানের সংগ্রহ পায় দিল্লি ডেয়ারডেভিলস। ৪ ওভারে ৩৪ রান দিয়ে উইকেটশূন্য ছিলেন মুস্তাফিজ।

 

বাঁচা-মরার ম্যাচে ব্যার্থ ছিলেন সুরিয়াকুমার যাদব। আক্রমনাত্মক শুরু তরে প্রথম ওভারেই সন্দিপ লামিচেনের বলে বিজয় শংকরের তালুবন্ধি হন ৪ বলে ১২ রান করে। ১৩ বলে ৫ রান করে অমিত মিশ্রার বলে ছয় মারতে গিয়ে সেই বিজয় শংকরের হাতেই তালুবন্ধি হয়েছেন ইশান কিশান। টানা ব্যার্থ পোলার্ড, আজও হতাশ করেছেন। ৭ রান করে লীমিচেনের বলে বোল্টের হাতে ধরা পরেছেন এই ক্যারিবিয়ান। একদিকে রান রেট বেড়েই চলেছে, অন্যদিকে নিয়মিত উইকেট হারাচ্ছে মুম্বাই।

৩১ বলে ৩টি চার ও ৪টি ছক্কা মেরে ৪৮ রান করা এভিন লুইস অমিত মিশ্রার বলে রিসাবের স্টাম্পিংয়ের শিকার হন। ক্রুনাল পান্ডিয়াও ব্যার্থ ছিলেন আজ, নেপালের লামিচেনের কাছেই উইকেটটা দিয়ে ফিরেছেন ৪ রান করে। দলের মুখে হাসি ফোঁটেতে পারেননি ফর্মহীন রহিত শর্মা। ১১ বলে ১৩ রান করে হার্সাল পাটেলের বলে বোল্টের তালুবন্ধি হয়েছেন রহিত। ১৭ বলে ২৭ করে আশা জাগিয়েছিলেন হার্দিক পান্ডিয়া। তিনিও ফিরে যান অমিত মিশ্রার করা ১৫তম ওভারের পঞ্চম বলে।

২০ বলে ২ চার ও ৩ ছক্কায় ৩৭ রান করা বেন কাটিং ছিলেন একমাত্র ভরসা। হার্সাল পাটেলের বলে তিনিও ম্যাক্সওয়েলের তালুবন্ধি হয়ে ফেরেন। শেষ সময়ে মারকান্দে, বুমরাহরা সহজেই উইকেট দিয়ে আসলে ১৬৩ রানেই অল-আউট মুম্বাই। ১১ রানের আক্ষেপে প্লে-অফে যাওয়া হলো না বর্তমান চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের। দুর্দান্ত বোলিংয়ে ম্যাচ সেরা অমিত মিশ্রা।

বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।