শিরোনাম
প্রচ্ছদ » খেলাধুলা » চেন্নাইয়ে বিপক্ষে হেরে পাঞ্জাবের প্লে-অফ স্বপ্ন অপূর্ণ রয়ে গেল!

চেন্নাইয়ে বিপক্ষে হেরে পাঞ্জাবের প্লে-অফ স্বপ্ন অপূর্ণ রয়ে গেল!

প্রকাশ : ২১ মে ২০১৮১:২৯:৪৫ পূর্বাহ্ন

সাব্বির রায়হান অপি | বাংলা ইনিশিয়েটর

পাঞ্জাব জিতলেও রান রেটের কারনে রাজস্থানেরই প্লে-অফ খেলার কথা। কিন্তু সেই কঠিন সমীকরণ তৈরী করতেও ব্যার্থ কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। চেন্নইয়ের কাছে ৫ উইকেটে হেরে রাজস্থানকে খালি মাঠ উপহার দেয় পাঞ্জাব। আর সেই খালি মাঠে গোল করেই শীর্ষ চারে রাজস্থান রয়েলস।

টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন চেন্নাইয়ের অধিনায়ক মাহেন্দ্র সিং ধোনি। ব্যাটিংয়ে নেমে পাঞ্জাবের দুই ব্যাটিং স্তম্ভ গেইল-রাহুলের দুজনই বড় ইনিংস খেলতে ব্যার্থ। ২য় ওভারে লুঙ্গি নিগিধির শর্ট বলে কট বিহাইন্ড হন কোন রান করতে না পারা গেইল। পরের ওভারেই ফিরেছেন অ্যারন ফিঞ্চ। টি-টোয়েন্টিতে যেন টেস্টের দৃশ্য, দিপাক চাহারের গুড লেংথের বলে আইট সাইড এজ হয়ে স্লিপে থাকা রাইনার তালুবন্ধি হন ৪ রান করা এই অজি ব্যাটসম্যান। ঠিক এর পরের ওভারেই লুঙ্গি নিগিধির আক্রমন, ১১ বলে ৭ রান করা রাহুলের উইকেট ভেঙ্গে দেন এই তরুন পেসার।

ডেভিড মিলারের সাথে সতর্ক ব্যাটিং করে মানজ তিওয়ারির ইনিংস মেরামতের চেষ্টা। ৩০ বলে ৩৫ করে ১২তম ওভারে ফেরেন মানজ তিওয়ারি। রবিন্দ্র জাদেজার অফ স্টাম্পের বাইরে করা গুড লেংথের বলটিকে স্লগ সুইপ করতে গিয়ে এজ হয়ে ধোনির গ্লাফস বন্ধি হন তিনি। পরের ওভারে ডেভিড মিলারকে ইয়োর্কারে ঘায়েল করে বল্ড করেন ডুয়াইন ব্রাভো। ২২ বলে ২৪ রান করে মিলার ফিরলে দলের হাল ধরেন করুন নাইয়ার। ১২ বলে ১৪ করা আক্সার পাটেল ফেরেন শারদুল ঠাকুরের বলে স্যাম ব্লিংসের তালুবন্ধি হয়ে। পরের ওভারে লুঙ্গি নিগিধির বলে আশ্বিন কট বিহাইন্ড ও এন্ড্রু তায় সুরেশ রাইনার তালুবন্ধি হলে বড় রানের আশে হারিয়ে যায় পাঞ্জাবের।

২৬ বলে ৩ চার ও ৫ ছয়ে ৫৪ রান করা করুন নাইয়ার ফেরেন ১৯তম ওভারে। ডুয়াইন ব্রাভোর ফুল টস বলে মিড অনে থাকা দিপাক চাহারের হাতে বল দিয়ে ফেরন করুন নাইয়ার। সব উইকেট হারিয়ে ১৫৩ রানের সংগ্রহ পায় পাঞ্জাব। জবাবে ব্যাট করতে নেমে চেন্নাইও শুরুতেই উইকেট হারায়। দ্বিতীয় ওভারে মোহিত শর্মার বলে উইকেটের পেছনে তালুবন্ধি হন রায়ডু।

পঞ্চম ওভারে জোড়া আক্রমন করেন আঙ্কিত রাজপুত। তৃতীয় বলে ১৪ রান করা ডু প্লেসিকে স্লিপে থাকা গেইলের তালুবন্ধি করেন আঙ্কিত। পরের বলেই স্যাম ব্লিংসের উইকেট ভেঙ্গে দেন। উপরে ব্যাটিং করার সুযোগ পেয়েও তা কাজে লাগাতে পারেননি হরভজন সিং। ২২ বলে ১৯ করে আশ্বিনের বলে এলবিডব্লিউ হন ভাজ্জি। এরপর দিপাক চাহার ও রাইনার দুর্দান্ত জুটি একটু একটু করে চেন্নাইকে জয়ে বন্দরে নিয়ে যাচ্ছিল। আশ্বিনের করা ১৭তম ওভারের প্রথম বলে বড় শট খেলতে গিয়ে কাভারে থাকা মোহিত শর্মার হাতে ধরা পরেন ২০ বলে ১ চার ও ৩ ছয়ে ৩৯ করা চাহার।

অন্যপ্রান্তে থাকা রাইনা ৪৮ বলে ৬১ রান করেছেন ৪টি চার ও ২টি ছক্কার সাহায্যে। প্রয়োজন ছিল একটি ফিনিশিং টাচের। ৭ বলে ১৬ রান করে দলকে জিয়ে বন্দরে নিয়ে যান অধিনায়ক মাহেন্দ্র সিং ধোনি। ৫ উইকেটের সহজ জয়ে ধোনিরা হাঁসলেও, পাঞ্জাবের জন্য ছিল তা হতাশার। টুর্নামেন্টে এতো ভালো শুরু করেও শীর্ষ চারে জায়গা হয়নি দলটির। দুর্দান্ত বোলিং পারফর্মেন্সে ম্যাচ সেরা হয়েছেন লুঙ্গি নিগিধি।

বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।