শিরোনাম
প্রচ্ছদ » খেলাধুলা » শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে হায়দ্রাবাদকে হারিয়ে ফাইনালে চেন্নাই!

শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে হায়দ্রাবাদকে হারিয়ে ফাইনালে চেন্নাই!

প্রকাশ : ২৩ মে ২০১৮১২:৩৮:১৫ পূর্বাহ্ন

জিহাদুল ইসলাম | বাংলা ইনিশিয়েটর

দুই দলের সূচনাটা একই ব্যর্থতার বৃত্ত থেকে।টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ ইনিংস সূচনার প্রথম বলেই হারান দলীয় ওপেনার শিখর ধাওয়ানকে। প্রেক্ষাপট বদলে চেন্নাই সুপার ইনিংসের সূচনাতেও ঘটে একই চিত্রের প্রতিফলন।চেন্নাই সুপার কিংসদের ইনিংসের পঞ্চম বলেই প্যাভিলিয়নে ফিরে যান শেন ওয়াটসন। এরপর লড়াইটা হয় সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ বনাম ফাফ ডু প্লেসিস এর। কাগজে কলমে ম্যাচটা হায়দ্রাবাদ বনাম চেন্নাই হলেও অলিখিতভাবে ম্যাচের চিত্রনাট্য অনুযায়ী তা হয় ফাফ ডু প্লেসিস বনাম সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ।

চেন্নাইয়ের ইনিংসের সূচনাটা হয় গোড়াপত্তনের মাধ্যমে। একপাশ আগলে রেখে ডু-প্লেসিস দলকে ধীরে ধীরে জয়ের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যান।তার অনবদ্য ৬২ রানের ইনিংসে ভর করেই পাঁচ বল হাতে রেখেই জয় পায় মাহেন্দ্র সিং ধোনির দল। চেন্নাই পেয়ে যায় ফাইনালে যাওয়ার টিকেট।

হায়দ্রাবাদের ব্যাটিং ইনিংসটাও সেমিফাইনাল সুলভ হয়নি। শুরুর দিকে একের পর এক উইকেট হারিয়ে ভালোই ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়েন হায়দ্রাবাদ। ক্যাপ্টেন উইলিয়ামসন ২৫ রান, ইউসুফ পাঠানের ২৪ রান আর শেষের দিকে কার্লোস ব্রাফেটের ৪২ রানের ঝড়ো ইনিংসে ভর করে তারা ১৪০ রানের পুঁজি পায়। পুরো আসর জুড়ে এরকম টার্গেট নিয়েই হায়দ্রাবাদের বেশ কয়টি জয় রয়েছে। টুর্নামেন্ট স্বল্প পুঁজিতে স্বাবলম্বী এই দলটি সেমিফাইনালেও ১৪০ রানের পুঁজি নিয়ে বোলিং ইনিংসটা ধামাকা দিয়েই শুরু করেছিলো। দলের অন্যতম বোলিং অস্ত্র লেগস্পিনার রশিদ খান একাই চেন্নাইয়ের ইনিংসে ধস নামিয়েছিলেন।

শুরুটা করেছিলেন সিদ্ধার্থ কৌল। শুরুতেই দুই উইকেট নিয়ে চেন্নাই এর ইনিংসের মূল ধসের সূচনাটা করেন তিনিই। কিন্তু তিনিই শেষে বনে যান ম্যাচের খলনায়ক। পক্ষান্তরে প্রথম ইনিংসের শেষ ওভারে ২০ রান দিয়ে খলনায়ক বনে যাওয়া শার্দুল ঠাকুর ম্যাচের শেষ চিত্রনাট্যে এসে বনে যান নায়ক।তার ৫ বলে ১৫ রানের ইনিংসটি চেন্নাই সুপার কিংসের জয়ে রাখে অসামান্য অবদান। তবে খেলার মূলনায়ক তো ইনিংসের শুরু থেকেই বুক চিতিয়ে একাই লড়াই করে দলকে ফাইনালের টিকেট এনে দেওয়া ফাফ ডু-প্লেসিসই।

চেন্নাই সুপার কিংস ১ম ফাইনালিষ্ট হলেও সুযোগ রয়েছে হায়দ্রাবাদের। এলিমিনেটর ম্যাচে কলকাতা ও রাজস্থানের মধ্যে যে দল জিতবে সেই দল হায়দ্রাবাদের সাথে খেলবে ২য় কোয়ালিফায়ার।

বাংলা ইনিশিয়েটরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।